আলাওল মধ্যযুগের একজন বাঙালি কবি। ছবি: সংগৃহীত

বাংলা সাহিত্যের সপ্তদশ শতাব্দীর কবি সৈয়দ আলাওল স্মরণে বাংলা একাডেমিতে এক সেমিনারের আয়োজন করা হয়েছে। আলাওল মধ্যযুগের একজন বাঙালি কবি।

কবিগণের মধ্যে বিভিন্ন বৈশিষ্ট্যের বিচারে কবি আলাওলকে সর্বোচ্চ স্থান দেওয়া হয়। আলাওল আরাকান  রাজসভার অন্যতম কবি হিসাবে আবির্ভূত হলেও মধ্যযুগের সমগ্র বাঙালি কবির মধ্যে ‘শিরোমণি আলাওল’ রূপে শীর্ষস্থান অধিকারী। আরবি ফার্সি হিন্দি ও সংস্কৃত ভাষায় তিনি সুপণ্ডিত ছিলেন। ব্রজবুলি ও মঘী ভাষাও তার আয়ত্তে ছিল। প্রাকৃতপৈঙ্গল, যোগশাস্ত্র, কামশাস্ত্র, অধ্যাত্মবিদ্যা, ইসলাম ও হিন্দু ধর্মশাস্ত্র-ক্রিয়াপদ্ধতি, যুদ্ধবিদ্যা, নৌকা ও অশ্ব চালনা প্রভৃতিতে বিশেষ পারদর্শী হয়ে আলাওল মধ্যযুগের বাংলা সাহিত্যে এক অনন্য প্রতিভার পরিচয় দিয়েছেন।

কবি আলাওলের জন্ম ফতেহাবাদ, যা বর্তমান মাদারিপুর জেলার জালালপুরে অবস্থিত, সম্ভবত জন্ম ১৬০৭ সালে, আর মৃত্যু ১৬৭৩ সালে। তার জীবনের অধিকাংশ সময় কেটেছে আরাকানে। আরাকানের রাজার অশ্বারোহী সেনাবাহিনীতে ভর্তি হন। তার কাব্যপ্রতিভার পরিচয় পাওয়া গেলে একসময় তিনি হয়ে পড়েন রাজসভার কবি।

কবি আলাওলের গ্রন্থগুলো হচ্ছে, পদ্মাবতী, সাথী ময়না ও লোকরানি, সয়ফুলমুলুক বদিউজ্জামান, তোফা ও রাগতালনামা। কবি আলাওল স্মরণে ফরিদপুরে ‘ কবি আলাওল সাহিত্য পুরস্কার ’শীর্ষক পুরস্কার প্রবর্তন করা হয়েছে। প্রতিবছর দেশের খ্যাতিমান লেখক ও কবিদের এই পুরস্কার প্রদান করা হয়।

বাংলা একাডেমির কবি শামসুর রাহমান সেমিনার কক্ষে আজ ১৩ জুন বিকেল চারটায় সেমিনারে কবির কর্ম ও জীবনের ওপর একক বক্তব্য রাখবেন অধ্যাপক গোলাম মুস্তফা। সভাপতিত্ব করবেন বাংলা একাডেমির সভাপতি জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। স্বাগত ভাষণ দেবেন একাডেমির মহাপরিচালক কবি হাবীবুল্লাহ সিরাজী।

আজকের পত্রিকা/রিয়া