আসাদুজ্জামান স্বপ্ন
সিনিয়র রিপোর্টার

কক্সবাজারের 'স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে' আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মসমর্পণ করে নিজের ভুল স্বীকারের কথা বলছেন ইয়াবা ব্যবসায়ী। ছবি : আজকের পত্রিকা

কক্সবাজারের ‘স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে’ আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মসমর্পণ করেছেন ১০২ জন ইয়াবা ব্যবসায়ী। কক্সবাজারের টেকনাফে আলোচিত সাবেক সাংসদ আবদুর রহমান বদির ১০ জন স্বজনসহ একশ’র বেশি ইয়াবা ব্যবসায়ী আনুষ্ঠানিকভাবে পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করেছেন। ১৬ ফেব্রুয়ারি শনিবার বেলা ১১টায় টেকনাফের পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বহুল আলোচিত আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠান শুরু হয়।

আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রধান অতিথি হিসেবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দিন। আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের কাছে মোট ১০২ জন ইয়াবা ব্যবসায়ী আত্মসমর্পণ করেন। সেসময় তারা সাড়ে তিন লাখ ইয়াবা ট্যাবলেট ও ৩০ টি অস্ত্র জমা দেন।

কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এ বি এম মাসুদ হোসেন জানান, ‘আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানে কিছু ইয়াবা প্রতীকীভাবে জমা দিয়ে মাদকের কারবারিরা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে আত্মসমর্পণ করেন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত কক্সবাজারের ১ হাজার ১৫১ জন ইয়াবা ব্যবসায়ীর মধ্যে ১০২ জন আত্মসমর্পণে সম্মত হয়ে নিরাপদ হেফাজতে এসেছেন। সরকারি তালিকার শীর্ষ গডফাদার হিসেবে চিহ্নিত ৭৩ জনের মধ্যে ৩০ জনের বেশি রয়েছেন আত্মসমর্পণকারীদের তালিকায়।

কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এ বি এম মাসুদ হোসেন জানান, ‘ইয়াবা ব্যবসায়ীদের আত্মসমর্পণের মাধ্যমে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার সম্মতি জানানোর পর ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের বিশেষ উদ্যোগে জেলা পুলিশও তৎপরতা শুরু করে। এতে অনেক ইয়াবা ব্যবসায়ী সাড়া দিয়ে নিজেরাই উদ্যোগী হয়ে নিরাপদ হেফাজতে আসে। মামলা ও অবৈধ সম্পদের বিষয়ে তিনি জানান, ‘যাদের বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে, সেগুলো স্বাভাবিক আইনের প্রক্রিয়ায় চলবে। যাদের কাছে অবৈধ সম্পদ আছে, তাদের ব্যাপারে দুদকসহ সংশ্লিষ্টরা খতিয়ে দেখবে।’

আজকের পত্রিকা/আ.স্বপ্ন/