মাহমুদ উল্লাহ্‌
বিজনেস করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে মার্সেলের হেড অব সেলস ড. সাখাওয়াৎ হোসেনের হাতে সেরা প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়ন পুরস্কারের ক্রেস্ট তুলে দিচ্ছেন বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুনসী। ছবি: মার্সেল

মাসব্যাপী ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার ২৪তম আসরে তিন ক্যাটাগরির সেরা পুরস্কার পেয়েছে দেশের ইলেকট্রনিক্স জায়ান্ট ওয়ালটন গ্রুপ। মেলায় দৃষ্টিনন্দন ও শৈল্পিক ডিজাইনের প্যাভিলিয়ন তৈরি করায় সেরা প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়ন ক্যাটাগরির প্রথম পুরস্কার পেয়েছে ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। প্যাভিলিয়ন ক্যাটাগরির প্রথম পুরস্কারও পেয়েছে একই গ্রুপের মার্সেল প্যাভিলিয়ন। এছাড়াও মেলায় মোট ৪১ লাখ ১ হাজার ৭৩২ টাকা ভ্যাট প্রদান করে সেরা ভ্যাটদাতা ক্যাটাগরিতে দ্বিতীয় পুরস্কার অর্জন করেছে ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড।

আয়োজক সংস্থা রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয় রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে বাণিজ্য মেলা প্রাঙ্গণে ২৪তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন। ওয়ালটনের পক্ষে সেরা প্রিমিয়াম প্যাভিলিয়নের পুরস্কার গ্রহণ করেন প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী পরিচালক মো. হুমাযুন কবির। তার হাতে ক্রেস্ট ও সনদ তুলে দেন অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটির সভাপতি তোফায়েল আহমেদ।

এদিকে সেরা সাধারণ প্যাভিলিয়ন ক্যাটাগরির প্রথম পুরস্কার গ্রহণ করেন মার্সেলের হেড অব সেলস ড. সাখাওয়াৎ হোসেন। সেরা ভ্যাটদাতা প্রতিষ্ঠান ক্যাটাগরির দ্বিতীয় পুরস্কার গ্রহণ করেন ওয়ালটনের ডেপুটি অপারেটিভ ডিরেক্টর মুজাহিদুল ইসলাম। এই দুটি পুরস্কারই তাদের হাতে তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব এসএম রেজওয়ান হোসেন, ইপিবির ভাইস-চেয়ারম্যান বিজয় ভট্টাচার্য প্রমুখ।

ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক (পিআর এ্যান্ড মিডিয়া) হুমায়ুন কবীর বলেন, নান্দনিক ডিজাইনের প্যাভিলিয়ন তৈরির পাশাপাশি মেলায় বিশ্বের লেটেস্ট ও উদ্ভাবনী প্রযুক্তির নতুন নতুন পণ্য এনেছিল ওয়ালটন। সেজন্য ক্রেতা সমাগম ছিল ব্যাপক। বিক্রিও হয়েছে আশাতীত। সেরা প্যাভিলিয়নের পুরস্কার প্রাপ্তিতে গ্রাহকদের প্রতি ওয়ালটনের দায়িত্ব আরো বেড়ে গেল।
এদিকে মার্সেলকে পুরস্কারের মাধ্যমে সম্মানিত করায় বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও ইপিবির প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে দেশীয় প্রতিষ্ঠানটির হেড অব সেলস ড. সাখাওয়াৎ হোসেন বলেন, বাজারে সাশ্রয়ী মূল্যে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সব পণ্য সরবরাহ করায় মার্সেল পণ্যের গ্রাহকপ্রিয়তা অতি দ্রুতহারে বাড়ছে। মেলাতেও গ্রাহক পর্যায়ে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে মার্সেল প্যাভিলিয়ন। এই পুরস্কার তারই প্রমাণ।

অনুষ্ঠানে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি জানান, ক্রেতা-সমাগম, পণ্য বিক্রি, রপ্তানি আদেশসহ সার্বিকভাবে অতীতের যে কোনো বারের চেয়ে এবারের মেলা খুব ভালো হয়েছে। এবারের মেলায় ক্রেতা-দর্শণার্থীর সংখ্যা ছিল অর্ধ-কোটিরও বেশি। রপ্তানি আদেশ পাওয়া গেছে প্রায় ২শ’ কোটি টাকার কাছাকাছি।

বাণিজ্য মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রিমিয়াম প্যাভিলিয়ন ক্যাটাগরিতে যৌথভাবে দ্বিতীয় পুরস্কার পেয়েছে আকতার ফার্নিচার্স ও আকিজ সিরামিকস। তৃতীয়ও পুরস্কারও পেয়েছে দুটি প্রতিষ্ঠান- মিনিস্টার হাই-টেক পার্ক লিমিডেট ও ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ। সাধারণ প্যাভিলিয়ন ক্যাটাগরিতে দ্বিতীয় ও তৃতীয় হয়েছে যথাক্রমে গোল্ডেন হারভেস্ট এগ্রো ইন্ডাস্ট্রি ও স্কয়ার ফুড অ্যান্ড বেভারেজ লি.।