‘শেখ হাসিনা ও ঘুরে দাঁড়ানোর বাংলাদেশ’  গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম। ছবি : আজকের পত্রিকা

একাত্তর ও পঁচাত্তরের ঘাতকদের জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদও আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম। ১৫ মার্চ শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবে শামিম আহমেদ রচিত ‘শেখ হাসিনা ও ঘুরে দাঁড়ানোর বাংলাদেশ’  গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এমন এ অভিযোগ করেন।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘সাবেক প্রেসিডেন্ট হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এই পাপের (স্বাধীনতাবিরোধী ও সাম্প্রদায়িক শক্তির লালন) বাইরে নন। ক্ষমতায় থাকতে তিনিও একাত্তরের ঘাতক ও পঁচাত্তরের ঘাতকদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়েছেন। সাম্প্রদায়িক শক্তি যখন আমাদের এই স্বাধীন বাংলাদেশকে গ্রাস করছিল তখন শেখ হাসিনার শক্তিশালী নেতৃত্বে বাংলাদেশকে আমরা আবার ফিরে পেয়েছি। মনে রাখতে হবে ওই সাম্প্রদায়িক শক্তিকে আর কখনো ক্ষমতায় আসতে দেওয়া যাবে না।’

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, যখন আমাদের এই স্বাধীন বাংলাদেশকে সাম্প্রদায়িক শক্তি গ্রাস করছিল, তখন শেখ হাসিনার শক্তিশালী নেতৃত্বে বাংলাদেশকে আমরা আবার ফিরে পেয়েছি। মনে রাখতে হবে ওই সাম্প্রদায়িক শক্তিকে আর কখনও ক্ষমতায় আসতে দেওয়া যাবে না।

‘শেখ হাসিনা ও ঘুরে দাঁড়ানোর বাংলাদেশ’  গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম। ছবি : আজকের পত্রিকা

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ভুল হলে আওয়ামী লীগের সমালোচনা এমনকি সরকারের সমালোচনা করতে বাধা নেই। আওয়ামী লীগের সমালোচনা করেন, সরকারের সমালোচনা করেন। এতে কোনো সমস্যা নেই। কিন্তু ওই সাম্প্রদায়িক শক্তিকে সহযোগিতা করার অর্থ হলো একাত্তরে যারা আমাদের স্বাধীনতাকে হত্যা করার চেষ্টা করেছিলো, লাখ লাখ মানুষকে হত্যা করেছিলো তাদের সহায়তা করা। এই অপশক্তিকে বারবার বিএনপি জামায়াত গোষ্ঠী সহায়তা করেছে।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া প্রসঙ্গে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, বাংলাদেশের জনগণ তাদের পাপ ভুলতে পারেনি। সেই পাপের ফল খালেদা জিয়া ভোগ করছেন। আমরা চাই না কোনো রাজনৈতিক নেতা জেল খাটুক। তারপরও বলতে বাধ্য হচ্ছি, বিএনপি অতীতে যে পাপ করেছে তার ফল হিসেবেই খালেদা জিয়া এখন জেলে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার রানা এবং সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

আজকের পত্রিকা/আ.স্ব/