এই বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে সদ্য মৃত পার্টির চেয়ারম্যান এরশাদের সিদ্ধান্তের অবাধ্যই হলেন রওশন। ছবি: সংগৃহীত

হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ বেঁচে থাকার সময় থেকেই জাতীয় পার্টির পরবর্তী চেয়ারম্যান নিয়ে খানিকটা জল ঘোলা হচ্ছিল। জীবিত অবস্থায় বেশ কয়েকবার পার্টির পরবর্তী চেয়ারম্যান পদের রদল-বদল করেছেন জাতীয় পার্টির সদ্য মৃত এই চেয়ারম্যান। স্ত্রী রওশন এরশাদ এবং ছোট ভাই জি এম কাদেরকে কয়েকবার তার অবর্তমানে পার্টির সর্বাধিনায়ক ঘোষণা করার পর মৃত্যুর মাস খানিক আগে শেষ পর্যন্ত জি এম কাদেরকেই পার্টির দায়িত্ব দিয়ে গিয়েছিলেন এরশাদ।

এরশাদের মৃত্যুর নয়দিনের মধ্যেই আবারও দেখা দিয়েছে সেই পুরনো অস্থিরতা। এরশাদ মনোনীত জি এম কাদেরকে পার্টির চেয়ারম্যান পদে মানছেন না দলটির কো–চেয়ারম্যান ও এরশাদ পত্নী রওশন এরশাদ। ২৩ জুলাই মঙ্গলবার জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় উপনেতার প্যাডে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে রওশন এরশাদ এ কথা জানিয়েছেন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি রওশন জানিয়েছেন, সম্প্রতি তিনি বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম থেকে জানতে পেরেছেন, জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জি এম কাদেরকে চেয়ারম্যান হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। এ নিয়ে আদৌ কোনো যথাযথ ফোরামে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়নি। জি এম কাদেরকে জাপার চেয়ারম্যান ঘোষণা করার আগে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্যদের মতামত নেওয়া হয়নি। ফলে, জি এম কাদের এখনো ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানই আছেন।

এছাড়া বিজ্ঞপ্তিতে দলীয় গঠনতন্ত্রের ধারা উল্লেখ করে রওশন লিখেছেন, “ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দায়িত্ব পালনকালে জাতীয় পার্টির গঠনতন্ত্র ধারা ২০(২)–এর ‘খ’-এ দেওয়া ক্ষমতা প্রয়োগ করতে পারবেন। যথা, ‘মনোনীত ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান প্রেসিডিয়ামের সংখ্যাগরিষ্ঠদের মতামতের ভিত্তিতে দায়িত্ব পালন করবেন।’ চেয়ারম্যানের অবর্তমানে ধারা ২০(২)–এর ‘ক’-কে উপেক্ষা করা যাবে না। আশা করি, বর্তমানে যিনি ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন, তিনি পার্টির গঠনতন্ত্র অনুযায়ী পরবর্তী চেয়ারম্যান না হওয়া পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করবেন।’

রওশনের এই বক্তব্যের সঙ্গে পার্টির অনেক জ্যেষ্ঠ নেতাও একমত বলে দাবি করা হয়েছে এবং তাদের মধ্যে প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাংসদ আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, ফখরুল ইমাম, সেলিম ওসমান, নাসরিন জাহান রত্না, মাসুদা এম রশীদ চৌধুরী, প্রেসিডিয়াম সদস্য মীর আব্দুস সবুর আসুদ ও দেলোয়ার হোসেন এবং সাংসদ রওশন আরা মান্নান এবং লিয়াকত হোসেন খোকার নামও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

এই বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে সদ্য মৃত পার্টির চেয়ারম্যান এরশাদের সিদ্ধান্তের অবাধ্যই হলেন রওশন।

আজকের পত্রিকা/সিফাত