কাজী ফয়সাল
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

নিহত ছাত্রী ফাহমিদা হক লাবণ্য। ছবি: সংগৃহীত

রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের কলেজগেট এলাকায় জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের পাশের সড়কে দুর্ঘটনায় ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী নিহত হয়েছেন। নিহত শিক্ষার্থীর নাম ফাহমিদা হক লাবণ্য (২১)। তিনি ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সিইসি বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী।

২৫ এপ্রিল বৃহস্পতিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। আহত অবস্থায় লাবণ্যকে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় আহত রাইডার সুমনকে হাসপাতালে পায়নি পুলিশ।

শেরেবাংলা নগর থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) জানে আলম মুন্সী আজকের পত্রিকাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, কীভাবে দুর্ঘটনাটি ঘটলো সেটি কেউই বলতে পারছে না। আশেপাশে কোনো সিসিটিভি ক্যামেরাও নেই। আমরা কারণ জানার চেষ্টা করছি।

ঘটনাটি সম্পর্কে ওসি আরো বলেন, হৃদরোগ ইনস্টিটিউট থেকে ‘৯৯৯’ এ ফোন করে বলা হয় দুর্ঘটনায় আহত ২ জন তাদের হাসপাতালে এসেছে। সেখান থেকে থানায় ফোন করা হলে আমি ঘটনাস্থলে যাই। গিয়ে আশেপাশের অনেকের সঙ্গে কথা বলি। কেউই দেখেনি কোনো গাড়ি কিংবা বাসের ধাক্কায় এই দুর্ঘটনা ঘটেছে কি-না। আশেপাশে যেসব সিসিটিভি ক্যামেরা আছে সেগুলো ঘটনাস্থল কাভার করে না। তাই মূল ঘটনাটি জানা যাচ্ছে না। পুলিশ হাসপাতালে যাওয়ার আগেই মেয়েটির মৃত্যু হয়। তার বাসা শ্যামলীর ৩ নম্বর রোডে। হাসপাতালে তার পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত রয়েছেন। মেয়েটি একটি রাইড শেয়ারিং অ্যাপে ভাড়া করা বাহনে করে যাচ্ছিলো বলে জানা গেছে। কিন্তু এটা পাঠাও নাকি উবার-মোটো তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এ ঘটনায় রাইডার সুমন আহত হয়েছেন। কিন্তু পুলিশ আসার আগেই সে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে হাসপাতাল থেকে চলে যায়। সে তার প্রেসক্রিপশনটিও নেয়নি। তাকে ফোন দিয়ে তার ফোনটিও বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে।

ময়নাতদন্তের জন্য নিহতের মরদেহ শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

আজকের পত্রিকা/কেএফ/জেবি