ভৌগোলিক দূরত্ব খুব বেশি না হলেও বাংলাদেশ থেকে পাকিস্তানে সরাসরি কোনো ফ্লাইট নেই। যেতে হয় কাতার ঘুরে। যে কারণে সময়ও লাগে প্রায় ১২-১৩ ঘণ্টা। বাংলাদেশ টেস্ট দলকে সে পথ দিয়েই যেতে হবে পাকিস্তান, যেমনটা জানিয়েছেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী।

এ বিষয়ে বিসিবি সিইও বলেন, ‘প্রথম দফার সফর ছিল বলে অনেক বিষয় ছিল। যে কারণে চার্টার্ড ফ্লাইটে যাওয়া। তবে সামনের দুই সফরে তা আর থাকছে না।’

লম্বা জার্নি, ক্রিকেটাররা যদি অসুস্থ হয়ে যায়; তাহলে কী উপায়। এমন কথা বিবেচনা করেই বিসিবি টি২০ দলের জন্য স্পেশাল বিমানের ব্যবস্থা করেছিল। কিন্তু তার বিনিময়ে মিলল শুধুই শূন্যতা। পাকিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচ টি২০ সিরিজ বাজেভাবে হেরেই বাড়ি ফিরে বাংলাদেশ দল।

অথচ বিসিবির এই বাড়তি সংযোজনেই (চার্টার্ড প্লেন) কেবল খরচ হয় কোটি টাকার বেশি। প্রথম দফায় পাকিস্তানের মাটিতে ২৪ থেকে ২৭ জানুয়ারি পর্যন্ত ছিল টাইগাররা। বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায়, প্রথম দফার এই সফরের যাওয়া-আসা মিলিয়ে বিসিবির খরচ হয়েছে দেড় লাখ মার্কিন ডলার বা এক কোটি ২৭ লাখ টাকারও বেশি।