ছবি: সংগৃহীত

এফ আর টাওয়ারের পরিচালনা কমিটির সভাপতি তাসভির উল ইসলামকে গ্রেফতারের পর এবার গ্রেফতার করা হলো এ ভবনটির জমির মালিক এস এম এইচ আই ফারুককে। ১৯ আগস্ট সোমবার বেলা একটার দিকে রাজধানীর গুলশান ২ নম্বর এলাকা থেকে দুদকের উপপরিচালক আবু বকর সিদ্দিকের নেতৃত্বে একটি দল তাকে গ্রেপ্তার করে।

এস এম এইচ আই ফারুক দুদকের মামলার এজাহারভুক্ত আসামি। দুদক সূত্র জানায়, গত ২৫ জুন রাজউকের সাবেক চেয়ারম্যান হুমায়ূন খাদিম, টাওয়ারের জমির মালিক এস এম এইচ আই ফারুক, রূপায়ণ গ্রুপের চেয়ারম্যান লিয়াকত আলী, এফ আর টাওয়ারের পরিচালনা কমিটির সভাপতি তাসভির উল ইসলামসহ ২৩ জনের বিরুদ্ধে আলাদা দুটি মামলা করে দুদক।

দুদকের মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, তাসভির উল ইসলাম এফ আর টাওয়ারের ২১, ২২ ও ২৩তম তলা বন্ধক রেখে আর্থিক প্রতিষ্ঠান জিএসপি ফিন্যান্স থেকে ৫ কোটি ৬৫ লাখ টাকা নিয়ে আত্মসাৎ করেছেন। তিনি কুড়িগ্রাম জেলা বিএনপিরও সভাপতি। ওই টাওয়ারের ২১, ২২ ও ২৩তম তলার মালিকানা রয়েছে প্রযুক্তি খাতের কোম্পানি কাশেম ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের হাতে। এই কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা তাসভির।

এর আগে গত ২৯ জুলাই একই মামলায় গ্রেপ্তার করা হয় রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) সাবেক সহকারী পরিচালক শাহ মো. সদরুল আলমকে। তিনিও মামলার এজাহারভুক্ত আসামি।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ২৮ মার্চ বনানীর এফ আর টাওয়ারে আগুন লাগে। এর পরপরই ভবনটির নির্মাণে অনিয়ম ও দুর্নীতির তথ্য উঠে আসে। আগুন লাগার ঘটনায় পুলিশের করা মামলায় তিনজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করা হয়। তিন আসামি হলেন এফ আর টাওয়ারের জমির মালিক এস এম এইচ আই ফারুক, ভবন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান রূপায়ণ গ্রুপের চেয়ারম্যান লিয়াকত আলী খান মুকুল এবং এফ আর টাওয়ারের বর্ধিত অংশের মালিক বিএনপি নেতা তাসভির উল ইসলাম।

আজকের পত্রিকা/সিফাত