কাঙ্ক্ষিত টিকেট না পেয়ে যাত্রীদের মধ্যে হতাশা। ছবি : সংগৃহীত

পবিত্র ঈদুল ফিতর সামনে রেখে শুরু হয়েছে বাসের অগ্রিম টিকেট বিক্রি। ১৭ মে  শুক্রবার সকাল থেকেই রাজধানীর গাবতলী, কল্যাণপুর, শ্যামলীসহ সব কাউন্টারে একযোগে অগ্রীম টিকেট বিক্রির কার্যক্রম শুরু হয়। তবে দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়েও গন্তব্যের ৩ জুনের টিকেট না পেয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন প্রত্যাশীরা।

এছাড়া অনেকেই লাইনের প্রথমদিকে দাঁড়িয়েও বাসে শেষের সারিতে টিকেট পাওয়ায় প্রতারণার অভিযোগ করেন তারা। কাউন্টারে কর্তৃপক্ষ জানায়, ৩ জুন সোমবারের টিকেটের চাপ বেশি থাকার কারণেই দ্রুত শেষ হয়েছে টিকেট।

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ১৭ মে শুক্রবার সকাল ৬টায় বাস কাউন্টারগুলো থেকে বিভিন্ন রুটের বাসের অগ্রিম টিকেট বিক্রি শুরু হয়।

প্রিয়জনদের সঙ্গে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করতে নগরবাসী সেহেরির পরেই বাস কাউন্টারগুলোতে ভিড় করেন। টিকেট প্রত্যাশী একজন বলেন, টিকেটের দাম আড়াইশো টাকা করে বেশি নিচ্ছে। কেউ কেউ দ্বিগুণ মূল্যেও টিকেট কিনছে।

এদিকে, কাঙ্ক্ষিত টিকেট না পেয়ে হতাশা প্রকাশ করে যাত্রীদের অভিযোগ, দীর্ঘ সময় লাইনে দাঁড়িয়েও প্রত্যাশিত টিকেট পাননি। এমনকি বিক্রি শুরুর মাত্র ১ ঘণ্টায় শেষ হয়ে যায় ৩ জুনের টিকেট।

রাজধানী ঢাকার মতো চট্টগ্রামেও শুরু হয়েছে বাসের আগাম টিকেট বিক্রি। পছন্দ অনুযায়ী টিকেট না পাওয়ার পাশাপাশি অতিরিক্ত টাকা আদায়েরও অভিযোগ কাউন্টারগুলোর বিরুদ্ধে। তবে বাড়তি ভাড়া আদায়ের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন বাস মালিকরা। তারা বলেন, মালিক-শ্রমিকদের নির্দেশে যেটা ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে আমরা সেটাই নিচ্ছি।

চট্টগ্রামে দেশের উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের ৬৪টি রুটের টিকেট বিক্রি হচ্ছে।

আজকের পত্রিকা/কেএইচআর/এমএআরএস