পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান।

নেত্রকোনার প্রখ্যাত বাউল শিল্পী মরমী কবি উকিল মুন্সীর স্মরণে তার স্মৃতি রক্ষার্থে মোহনগঞ্জ উপজেলায় একটি গবেষণা কেন্দ্র তৈরি করা হবে বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী এম এ মান্নান।

তিনি বলেন, সিলেট, সুনামগঞ্জ ও নেত্রকোনার সাথে ৯০ ভাগ সড়ক যোগাযোগের কাজ সম্পন্ন হয়ে গেছে। নদীর উপর ফ্লাইওভার নির্মাণ করে সড়ক যোগাযোগের ব্যবস্থা করা হবে। এ ছাড়াও হাওর এলাকায় রেল চলাচলের ব্যবস্থা করা হবে। যাতে ভবিষ্যত প্রজন্ম ঢাকা থেকে সিলেট হয়ে হাওর এলাকা দেখতে দেখতে আবার নেত্রকোনা হয়ে ঢাকায় যেতে পারে।

এদিকে হাওর এলাকায় একটি কৃষি ইনস্টিটিউট গড়ে তোলা হবে। যাতে করে হাওরের কৃষকরা কৃষি ক্ষেত্রে সুবিধা ভোগ করতে পারে।

১৫ মার্চ শুক্রবার দুপুরে নেত্রকোনা মোহনগঞ্জ উপজেলার শহীদ স্মৃতি মহাবিদ্যালয় মাঠে বাউল সাধক উকিল মুন্সী স্মরণে বাউল উৎসব অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

মোহনগঞ্জ শহীদ স্মৃতি মহাবিদ্যালয় ও বাউল উৎসব কমিটির আয়োজনে প্রধানমন্ত্রী কার্যলয়ের সচিব সাজ্জাদুল হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিষেশ অতিথি ছিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য রেবেকা মমিন এমপি। প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লেখক ও প্রাবন্ধিক অধ্যাপক যতীন সরকার।

এ সময় বক্তারা বাউল সাধক উকিল মুন্সীর বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেন এবং তার স্মৃতি রক্ষার্থে উপজেলায় একটি গবেষণা কেন্দ্র তৈরি করে তার লেখা অসংখ্য গান সংরক্ষণ করার দাবি জানান।

এর আগে বাউল সাধক উকিল মুন্সী স্মরণে বাউল উৎসব উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান।

এদিকে ১৫ মার্চ বিকেলে অনুষ্ঠানের ২য় পর্বে সাজ্জাদুল হাসানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন নেত্রকোনা শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপচার্য অধ্যাপক রফিকউল্লাহ খান, ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনার মাহমুদ হাসান এবং ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজি নিবাস চন্দ্র মাঝি।

রাতে উকিল মুন্সীর স্মরণে বাউল উৎসবে প্রখ্যাত বাউল সংগীত শিল্পী মমতাজ বেগম, শফি মণ্ডলসহ স্থানীয় শিল্পীগণ সংগীত পরিবেশন করবেন।

দেবল চন্দ্র দাস/নেত্রকোনা/জেবি