বাংলাদেশের বিশ্বকাপ দল। ছবি:সংগৃহীত

ঈদের  আমেজের সাথে এবার যুক্ত হচ্ছে ক্রিকেট বিশ্বকাপ। ৩০ মে ইংল্যান্ড বনাম দক্ষিণ আফ্রিকার ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে বিশ্বকাপের এবারের আসর। গেলো আসরগুলো থেকে কিছুটা ভিন্ন আদলে শুরু হচ্ছে এবারের বিশ্বকাপ।

১০ দল নিয়ে শুরু হওয়া এবারের বিশ্বকাপে থাকছে না কোন গ্রুপ পর্ব। প্রত্যেক দলই মুখোমুখি হবে একে অপরের। পরবর্তীতে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা ৪ দল হবে সরাসরি উন্নতি হবে সেমিফাইনালে। তাই সেরা ১০ দল নিয়ে শুরু হওয়া এবারের বিশ্বকাপ নিয়ে মানুষের মধ্যে চলছে ভিন্ন আমেজ।

অনেকে নতুন টিভি কিনছেন বাংলাদেশের খেলা দেখার জন্য। এবার ঈদের সরকারি ছুটি ৯ দিন। তাই খেলা দেখতেও কোনো সমস্যা হবে না অনেকের।

ম্যাচ জিতলে টিএসসি হয়ে উঠবে এমন মিছিলের জনপদ। ছবি : সংগৃহীত

২ জুন দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে ম্যাচ দিয়ে এবারের বিশ্বকাপ যাত্রা শুরু করবে বাংলাদেশ। পরেরটি ৫ জুন, একই ভেন্যুতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। প্রাথমিক পর্বে বাংলাদেশের একমাত্র দিবারাত্রির ম্যাচ এটি। ৮ জুন ‘পয়া ভেন্যু’ কার্ডিফে বাংলাদেশ খেলবে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। ১১ জুন ব্রিস্টলে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা। ১৭ জুন টন্টনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে খেলবেন মাশরাফিরা। ২০ জুন ট্রেন্টব্রিজে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে খেলার পর ২৪ জুন সাউদাম্পটনে বাংলাদেশ পাবে আফগানিস্তানকে। উপমহাদেশের দুই প্রতিদ্বন্দ্বী ভারত-পাকিস্তানকে বাংলাদেশ পাচ্ছে প্রাথমিক পর্বের প্রায় শেষ দিকে। ২ জুলাই বার্মিংহামে ভারতের বিপক্ষে লড়বে বাংলাদেশ। লর্ডসে প্রথমবারের মতো সীমিত ওভারের ক্রিকেট খেলতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। ৫ জুলাই লর্ডসে বাংলাদেশের শেষ গ্রুপ ম্যাচের প্রতিপক্ষ পাকিস্তান।

১৬ কোটি বাঙালির কাছে ক্রিকেট মানেই এক বিশেষ অনুভূতির জায়গা। অনেকে মনে করেন ক্রিকেটই আমাদের দেশের একমাত্র জায়গা যেখানে দল মত নির্বিশেষে সবাই মিলিত হয় একসঙ্গে। ক্রিকেট পাগল জনগণ যে তাই ঈদের জামা কেনার পাশাপাশি বাংলাদেশ দলের জার্সি কিনবে সে কথা বলাই বাহুল্য।

আজকের পত্রিকা/এসএমএস/এমএইচএস