ইয়াসির আজমান

সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার রাজানগর ইউনিয়নের গচিয়া গ্রামের অকাল প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সাংবাদিক সালেহ চৌধুরীর ছেলে ইয়াসির আজমান দেশের সবচেয়ে বড় মোবাইল অপারেটর গ্রামীণফোনের নতুন প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন।

গ্রামীণ ফোনের নবাগত সিইও হিসেবে তার এই সফলতায় বাংলাদেশের সকল মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা অত্যন্ত আনন্দিত ও গর্বিত।

সিইও ইয়াসির আজমানকে অভিনন্দন জানিয়েছেন আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান (নিবন্ধন নং জামুকা-২০৩) কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি হুমায়ুন কবির, সাধারণ সম্পাদক  সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম নয়ন, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী জাহান, সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি সাংবাদিক বাউল আল-হেলাল, সহ-সভাপতি কেবি মুর্শেদ জাহাঙ্গীর, প্রচার সম্পাদক নেছার আহমদ শফিক, সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা শাখার সহ-সভাপতি নুরুল আমিন,সাধারন সম্পাদক মোস্তাক আহমদ রুমেল, পৌর কমিটির সহ-সভাপতি আলেক রাজা, সাধারণ  সম্পাদক বিল্লাল হোসেন বেলাল, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান শিল্পী আমির হোসেন ও দিরাই উপজেলা প্রতিনিধি জিয়াউর রহমান চৌধুরী প্রমুখ।

তারা আশা প্রকাশ করে বলেন, ৭১ এর মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ও জঙ্গীবাদের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সুনামগঞ্জের পঞ্চরত্ন বাউল যথাক্রমে বৈষ্ণব কবি রাধারমন, মরমী কবি হাছন রাজা, গানের সম্রাট  কামাল পাশা (কামাল উদ্দিন), বাউল সম্রাট শাহ আব্দুল করিম ও জ্ঞানের সাগর দূর্বিন শাহ এই প্রধান ৫ লোককবির সঙ্গীতকর্ম প্রচার ও প্রসারের মাধ্যমে নবাগত সিইও মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ইয়াছির আজমানের নেতৃত্বে গ্রামীণফোন তার অগ্রযাত্রাকে অব্যাহত রাখবে।

উল্লেখ্য বৃহস্পতিবার গ্রামীণফোনের পরিচালনা পর্ষদ ইয়াসির আজমানকে পহেলা ফেব্রুয়ারী ২০২০ থেকে সিইও হিসেবে দায়িত্ব পালন শুরু করতে বলেছে। এর মধ্যে দিয়ে এই প্রথম কোন বাংলাদেশী গ্রামীণফোনের সিইও হিসেবে নিয়োগ পেলেন।

এদিকে এক বিজ্ঞপ্তিতে গ্রামীণফোন জানায়, সিইও হিসেবে নিযুক্ত হওয়ার আগে আজমান ২০১৫ সালের জুন থেকে গ্রামীণফোনের সিএমও ও ২০১৭ সালের মে থেকে ডেপুটি সিইও এবং সিএমও হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

এর আগে আজমান টেলিনর গ্রুপের বিতরণ ও ই-বিজনেস বিভাগের প্রধান এবং টেলিনরের হয়ে বিভিনś দেশে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন। আজমান বর্তমান প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মাইকেল ফোলির স্থলাভিষিক্ত হবেন।

-আল-হেলাল