কমিটি ঘোষণার দু’সপ্তাহ না পেরতেই বঙ্গবন্ধু পরিষদ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) শাখার নতুন কমিটিতে ভাঙন দেখা দিয়েছে।

রবিবার (১২ জানুয়ারী) বিকেলে নতুন কমিটির চারজন সদস্য তাদের সদস্যপদ থেকে অব্যহতি চেয়ে একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

ওই প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে তারা বঙ্গবন্ধু পরিষদ ইবি শাখার নতুন কমিটিকে অগণতান্ত্রিক পন্থায় গঠিত হওয়ায় অভিযোগ এনে তা থেকে নিজেদেরকে অব্যহতি নেওয়ার ঘোষণা দেন। এর ফলে কমিটি গঠনের কয়েকদিনের মধ্যেই এই ভাঙনের সৃষ্টি হয়েছে।

নতুন কমিটি থেকে অব্যহতি চেয়ে প্রেস বিজ্ঞপ্তি দেয়া শিক্ষকরা হলেন- অধ্যাপক ড. রেজওয়ানুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. তপন কুমার জোয়ার্দার, অধ্যাপক ড. আহসান উল আম্বিয়া এবং সহযোগী অধ্যাপক ড. বাকী বিল্লাহ বিকুল।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে তারা বলেন, বঙ্গবন্ধুর আজীবন স্বপ্ন ছিল গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করা। কিন্তু তার আদর্শ বাস্তবায়নে উদ্বুদ্ধ প্রগতিশীল ও মুক্তবুদ্ধিসম্পন্ন সংগঠন বঙ্গবন্ধু পরিষদ ইবি শাখা যে প্রক্রিয়ায় গঠিত হয়েছে সেটি আমরা কখনও লালন করিনা। কাজেই অগণতান্ত্রিক পন্থায় নেতা হওয়ার চেয়ে একজন কর্মী হিসেবে তার আদর্শ বাস্তবায়নে আমরা বেশি স্বাচ্ছন্দ বোধ করি।

এদিকে ইবি বঙ্গবন্ধু পরিষদের নতুন কমিটিতে পদ সংখ্যা বাড়ানোর কথা থাকলেও নতুন পদ দেয়নি কেন্দ্র। অপরদিকে যারা পদ পেয়েছেন তাদের মধ্যে শিক্ষকের চেয়ে কর্মচারীদের আধিক্ষ্য লক্ষ করা গেছে বলে অভিযোগ অব্যহতি চাওয়া ওই শিক্ষকদের।

এ বিষয়ে জানতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ইসলামী বিশ^বিদ্যালয় শাখার নতুন কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমানকে একাধিকবার ফোন দেওয়া হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

উল্লেখ্য, গত ৩১ ডিসেম্বর ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় বঙ্গবন্ধু পরিষদের নতুন কমিটির অনুমোদন দেন পরিষদের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ডা. এস এ মালেক। এতে আইসিটি বিভাগের অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমানকে সভাপতি ও ম্যানেজমেন্ট বিভাগের অধ্যাপক ড. মাহবুবুল আরফিনকে সাধারণ সম্পাদক করা হয় ।

এরপর গত ৬ জানুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব’ ম্যুরালে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে কার্যক্রম শুরু করে নতুন কমিটি।

এরপর বিতর্কের মুখে বিগত কমিটিকে ঐক্যবদ্ধ করার প্রয়াসে সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. রুহুল কুদ্দুস মো: সালেহের নেতৃত্বে সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

-এইচ কে জে