ইন্দুরকানীতে প্রেম সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে হোটেল ব্যবসায়ীকে ইট দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে প্রতিপক্ষরা।

বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলার দক্ষিন ইন্দুরকানীর গোডাউন এলাকায় সেউতিবাড়ীয় গ্রামের আঃ খালেকের ছেলে মোঃ সুমন (২৬)কে দক্ষিন ইন্দুরকানী গ্রামের আবু তালেব হাওলাদারের ছেলে মোঃ জুয়েল হাওলাদার (২০) ও তার সহযোগীরা হামলা চালিয়ে ইট দিয়ে পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে গুরুতর আহত করে। এসময় ।

পরে তার ডাক চিৎকারে স্থানীয়রা উদ্ধার করে পিরোজপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। সুমনকে হামলা থেকে বাচাতে গিয়ে ঔষধ ফার্মেসী ব্যবসায়ী মোঃ কামরুল আহসান (সোহাগ) আহত হয়।এর আগে গত মঙ্গলবার রাতে জুয়েল গোপনে তার প্রেমিকার সাথে দেখা করার জন্য সুমনদের বাড়িতে গেলে সুমন সহ এলাকাবাসী তাকে ধরে মারধর করে।

এঘটনার জের ধরেই জুয়েল সুমনের উপর হামলা চালায়।

অভিযুক্ত জুয়েল জানান, গত মঙ্গলবার রাতে আমি সুমনদের এলাকায় গেলে সুমন তার লোকজন নিয়ে আমাকে মারধর করে। পরে আবার লোকজন নিয়ে আমাকে মারধর করতে এলে আমার প্রতিবাদ করি। এসময় আমি একটি ইট ছুড়ে মারলে সুমনের মাথায় লেগে মাথা ফেটে যায়।

আহত সুমনের পিতা আঃ খালেক জানান, আমার ছেলে ঘোষেরহাট বাজারে যাওয়ার সময় জুয়েল তার লোকজন নিয়ে হামলা করে এবং ইট দিয়ে পিটিয়ে আমার ছেলের মাথা ফাটিয়ে গুরুতর আহত করে।

ইন্দুরকানী থানার ওসি মোঃ হাবিবুর রহমান জানান, দক্ষিন ইন্দুরকানী এলাকায় এক যুবককে মারধরের ঘটনা শুনেছি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

-মোঃ মারুফুল ইসলাম