নৌকাডুবি

ইতালিতে ১৩ জন নারীর মৃতদেহ উদ্ধার করেছে। প্রায় ৫০ জন অভিবাসীবোঝাই একটি নৌকা লাপপেদুসার কাছে ডুবে যাওয়ার পর ওই নারীদের মৃত্যু হয়। নিহত নারীদের মধ্যে কয়েকজন গর্ভবতী বলেও জানিয়েছে তারা।

কোস্টগার্ড জানিয়েছে, আরও আট শিশু এবং বেশ কয়েকজন গর্ভবতী নারীসহ প্রায় ১২ এখনও নিখোঁজ রয়েছে। অতিরিক্ত যাত্রী থাকার কারণে ইতালির দক্ষিণাঞ্চলীয় ওই দ্বীপটির কাছে ওই নৌকা ডুবে যায়।

নৌকা ডুবে যাওয়ার পর কোস্টগার্ড ও একটি শুল্ক নৌযান সোমবার ২২ জনকে পানি থেকে উদ্ধার করে। কোস্টগার্ড এক বিবৃতিতে জানায়, সোমবার মধ্যরাতের কিছুক্ষণ পর ‘অতিরিক্ত যাত্রীবোঝাই’ ওই নৌকার যাত্রীদের উদ্ধারে যান তারা। তবে নৌকাটির কাছাকাছি পৌঁছানোর পর ‘খারাপ আবহাওয়া ও অভিবাসীদের হঠাৎ স্থানচ্যুতির’ কারণে সেটি ডুবে যায়।

ইতালির গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, ওই নৌকাটি তিউনিসিয়া থেকে ছেড়ে আসে। নৌকাটিতে তিউনিসিয়ান ও সাব-সাহারান আফ্রিকান নাগরিক ছিলেন।

লামপুদেসার মেয়র তোতো মারতেল্লো বলেছেন, মানুষ এভাবে মরতে পারে না। আমাদের অবশ্যই পাচারকারী নেটওয়ার্ককে খুঁজে বের করতে হবে এবং ভূমধ্যসাগরকে নিরাপদ রাখতে পদক্ষেপ নিতে হবে।

আন্তর্জাতিক অভিবাসী সংস্থা (আইওএম) জানিয়েছে, ২০১৬ সাল থেকে এখন পর্যন্ত কমপক্ষে ১৯ হাজার অভিবাসী ভূমধ্যসাগর পাড়ি দেবার সময় ডুবে গেছে বা নিখোঁজ রয়েছে। কেবল চলতি বছর সাগরে ডুবে এক হাজার ৪১ জন অভিবাসীর মৃত্যু হয়েছে।