ইউনেস্কো বিশ্ব ঐতিহ্যের তালিকায় নতুন ২৯টি স্থান। ছবি : সংগৃহীত

ইরাকের প্রাচীন ব্যাবিলনের ধ্বংসাবশেষ, ফ্রাঙ্ক লয়েড রাইটের স্থাপত্য কিংবা উত্তরপূর্ব ইতালির প্রসেসকো অঞ্চল সব কিছুই এখন বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ। ২০১৯ সালে বিশ্ব ঐতিহ্যের তালিকার জন্য নির্বাচিত ২৯টি স্থানের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। আজারবাইজানের রাজধানী বাকুতে ইউনেস্কোর বার্ষিক সেমিনারে এই তালিকা প্রকাশ করা হয়।

আইসল্যান্ডের ভটনাজকুল জাতীয় উদ্যান। ছবি : সংগৃহীত

নিম্মাহ বা নীনমাক মন্দির ইস্তার গেটের কাছে অবস্থিত। তালে ওরানের মতে, মন্দিরের পরিকল্পনা নবূখদ্নিৎসর ২ এর সময়কার একটি নিদর্শন।

নিম্মাহ টেম্পল, ব্যাবিলন, ইরাক। ছবি : সংগৃহীত

জাতিসংঘের সাংস্কৃতিক সংস্থা ইউনেস্কো তার সংরক্ষণ তালিকাতে সাংস্কৃতিক, প্রাকৃতিক এবং মিশ্র তাত্পর্যপূর্ণ সাইটগুলি যোগ করার জন্য প্রতিবছর বার্ষিক এক সভার আয়োজন করে থাকে। এখন পর্যন্ত ইউনেস্কো দ্বারা স্বীকৃত বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ হিসেবে ১,১২১ টি স্থান যুক্ত করা হয়েছে।

ফ্রাঙ্ক লয়েড রাইটের স্থাপত্য। ছবি : সংগৃহীত

ফ্রাঙ্ক লয়েড রাইট ছিলেন একজন আমেরিকান স্থপতি, অভ্যন্তর ডিজাইনার, লেখক এবং শিক্ষিক, যিনি ১০০০ এরও বেশি কাঠামো ডিজাইন করেছিলেন, যার মধ্যে ৫৩২টি ডিজাইনের কাজ সম্পন্ন হয়েছিল। রাইট মানবতা এবং তার পরিবেশের সাথে মিল রেখে কাঠামোগত নকশাগুলি নিয়ে কাজ করতেন।

ফ্রাঙ্ক লয়েড রাইটের স্থাপত্য। ছবি : সংগৃহীত

২০১৯ সালের নতুন তালিকাতে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের নিদর্শন স্বরুপ যোগ করা হয়েছে আইসল্যান্ডের ভটনাজকুল জাতীয় উদ্যান, সাংস্কৃতিক স্থান- আজারবাইজানের ঐতিহাসিক শহর শেকি এবং প্রত্নতাত্ত্বিক স্থান- দক্ষিণ-পূর্ব চীনের লিয়াংঝু শহরের ধ্বংসাবশেষ। এছাড়া মিশ্র তাৎপর্যপূর্ণ স্থান হিসেবে তালিকায় জায়গা পেয়েছে ব্রাজিলের প্যারাটি এবং ইলা গ্রান্ডে, যা প্রাকৃতিক এবং সাংস্কৃতিক উপাদানের সাথে একত্রিত।

অস্ট্রেলিয়ার বুদজ বিম সাংস্কৃতিক স্থান টে রাক। ছবি : সংগৃহীত

শেকি উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় আজারবাইজানের একটি শহর। শেকি বৃহত্তর ককেশাসেস্ক পর্বতমালার দক্ষিণ অংশে রাজধানী বাকু থেকে ৩২৫ কিলোমিটার উত্তরে আজারবাইজানে অবস্থিত।এ শহরের জনসংখ্যা ৬৩০০০।

Historic-Centre-of-Sheki-with-the-Khan's-Palace-M
আজারবাইজানের ঐতিহাসিক শহর শেকি। ছবি : সংগৃহীত
প্যারাটি এবং ইলাহ গ্রান্ডে, ব্রাজিল। ছবি : সংগৃহীত

লিয়াংঝু সংস্কৃতি চীনের ইয়াংৎসের নদী তীরে অবস্থিত সর্বশেষ নিওলিথিক জেড সংস্কৃতি। এখানে জ্যাকেট, রেশম, হাতির দাঁত এবং লাশের কৃত্রিম জিনিসগুলি বিশেষভাবে অভিজাত কবরস্থানে পাওয়া যায়।

চীনের লিয়াংঝু সংস্কৃতি। ছবি : সংগৃহীত

আরও একটি অসাধারণ সংযোজন হচ্ছে জড্রেল ব্যাংক অবজারভেটরি, উত্তর-পশ্চিম ইংল্যান্ডের একটি সাইট যা বিশ্বের অন্যতম প্রধান রেডিও জ্যোতির্বিজ্ঞান টেলিস্কোপের আবাসস্থল। ১৯৪৫ সালে মহাজাগতিক রশ্মি, আবহাওয়া, চাঁদ এবং জ্যোতির্বিজ্ঞান ইত্যাদির গবেষণা হয় এখানে।

The Lovell Telescope at Jodrell Bank Observatory, UK
জড্রেল ব্যাংক অবজারভেটরি। ছবি : সংগৃহীত

 

এছাড়া ইউনেস্কো কমিটি উত্তর ম্যাসেডোনিয়াতে ওহরিড অঞ্চলের প্রাকৃতিক ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য আলবেনিয়াতে একটি বিদ্যমান সাইট সম্প্রসারণের অনুমোদন দেয়।

Related image
ম্যাসেডোনিয়াতে ওহরিড অঞ্চল। ছবি : সংগৃহীত

উল্লেখ্য, ১৯৭৮ সাল থেকে বিশ্ব ঐতিহ্য তালিকাতে বিভিন্ন সাইট যোগ করে আসছে। শুরুতেই ইকুয়েডারে গালাপাগোস দ্বীপপুঞ্জ, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইয়েলোস্টোন ন্যাশনাল পার্ক এবং সেনেগালে গোরের দ্বীপ সহ প্রথম ১২টি সাইট তালিকাভুক্ত হয়েছিল।

 আজকের পত্রিকা/কেএইচআর/