আড়ং’কে জরিমানা করা সেই সরকারি কর্মকর্তা। ছবি: সংগৃহীত

আড়ংয়ের একটি শাখাকে জরিমানা করা সরকারি কর্মকর্তার বদলির ঘটনায় ফেসবুকে ব্যাপক সমালোচিত হতে হচ্ছে প্রতিষ্ঠানটিকে।

ওই কর্মকর্তার বদলির নেপথ্যে আড়ংয়ের প্রভাব রয়েছে মনে করে ফেসবুকে ডাক এসেছে প্রতিষ্ঠানটি বয়কটের। একইসঙ্গে ওই কর্মকর্তাকে বদলির সিদ্ধান্তেরও প্রতিবাদ জানানো হচ্ছে।

সোমবার (০৩ জুন) বিকেলে আড়ংয়ের উত্তরা শাখায় একই পণ্য পাঁচদিনের ব্যবধানে প্রায় দ্বিগুণ দামে বিক্রির প্রমাণ পায় জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের বাজার মনিটরিং টিম। ৭৩০ টাকা দামের পাঞ্জাবি এক সপ্তাহ পর ১৩০৭ টাকায় বিক্রি হচ্ছে- মোহাম্মদ ইব্রাহীম হোসেন নামের এক ব্যক্তির অভিযোগ পেয়ে সোমবার দুপুরে উত্তরা আড়ংয়ে অভিযান চালায় জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

এমন অপরাধের শাস্তিস্বরূপ প্রতিষ্ঠানটিকে চার লাখ টাকা জরিমানা, দ্বিগুণ দাম রাখা ওই পণ্যের বিক্রি নিষিদ্ধ এবং একদিন শো-রুমটি বন্ধ রাখার আদেশ দেন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মঞ্জুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার। তবে আড়ং কর্তৃপক্ষের দেওয়া মুচলেকার কারণে কিছু সময় পরে প্রতিষ্ঠানটি একদিন বন্ধ রাখার আদেশ ফিরিয়ে নেয় বাজার মনিটরিং টিম।

তবে ওইদিন রাতেই জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে, মঞ্জুর মোহাম্মদ শাহরিয়ারের খুলনা বদলির প্রজ্ঞাপন জারি করা হলে আবারও বিতর্ক তৈরি হয় আড়ংকে ঘিরে।

উই আর বাংলাদেশ বা ওয়াব নামের একটি গ্রুপের এডমিন নাহিদ ইসলাম এক গ্রুপ পোস্টে লেখেন, দুদকের চেয়ারম্যান মুনীর চৌধুরী গেলো। বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যানও গেলো। স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ও গেলো। এয়ারপোর্ট মেজিস্ট্রেট বানসুরী ইউসুফ ভাই ও গেলো। এবার গেলো শাহরিয়ার ভাই…. অথচ ওয়াসার শরবতের পানি খাওয়ানো অফিসারেরা ঠিকই স্বপদে বহাল আছে!!!

খালিস সাইফুল্লাহ নামে এক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী নিজ টাইমলাইনে লেখেন, এদেশ অসৎ আর প্রতারক ব্যবসায়ীদের। এয়ারপোর্ট ম্যাজিস্ট্রেট ইউসুফের পর এবার বদলি করা হল ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের ডেপুটি ডিরেক্টর মঞ্জর মোহাম্মদ শাহরিয়ারকে। আমরা এই সিদ্ধান্তের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। অবিলস্বে তার বদলি প্রত্যাহার করা হোক। আড়ং বয়কট করুন।

আড়ং এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদের বহিঃপ্রকাশ হিসেবে আড়ং ও সবধরনের পণ্য ‘বয়কট’ এর ডাক দিয়েছেন অনেকেই। ইতোমধ্যে হ্যাশ ট্যাগ দিয়ে চালু হয়েছে ‘বয়কট আড়ং ক্যাম্পেইন’ (#boycot_aarong)। আড়ং বয়কটের লোগোযুক্ত ছবি নিজেদের টাইমলাইনে প্রোফাইল পিকচার হিসেবেও দিচ্ছেন অনেকে। এছাড়াও আড়ংয়ের অফিসিয়াল পেইজে ‘লাইক’ এর বদলে ‘আনলাইক’ দিতেও নেটিজেনেরা একে অপরকে আহ্বান জানাচ্ছেন এর ফলাফল দেখা যায় দ্রুততম সময়েই।

মঙ্গলবার (৪ জুন) রাত দেড়টার দিকে আড়ংয়ের অফিসিয়াল পেইজে মোট লাইক ছিল ২৪ লাখ ৪৬ হাজার ৪২৫টি। ভোর ছয়টার দিকে এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত পেইজটিতে বর্তমান লাইক সংখ্যা ২৪ লাখ ৪০ হাজার ২৩২টি।

একই সঙ্গে, মঞ্জুর মোহাম্মদ শাহরিয়ারের বদলি আদেশ বাতিলের দাবিতে ফেসবুকে খোলা হয়েছে ইভেন্ট পেইজও।

আজকের পত্রিকা/এমইউ