আনিসুর রহমান দিপু
নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি

সিনে অ্যাওয়ার্ডের পোস্টার। ছবি : সংগৃহীত

বাংলাদেশের পরেই নিউ ইয়র্কই মনে হয় একমাত্র জায়গা যেখানে বাংলাদেশের সংস্কৃতি চর্চা বিপুল পরিমাণে অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। প্রায় প্রতিদিনই কোথাও না কোথাও কোনো না কোনো উৎসব বা অনুষ্ঠান লেগেই আছে। শীতে পিঠা উৎসব, বিভিন্ন কমিটির আয়োজন। রোজায় ইফতার বা সেহেরি পার্টি।

তবে সামারে এর ব্যাপকতা অনেক। স্বল্প পরিসরের সামার উদযাপনের জন্য অন্যান্য জাতির মতো বাংলাদেশিরাও মেতে উঠে উৎসব, পার্বণে। চলে বিবিকিউ পার্টি, পিকনিক, স্ট্রিট ফেয়ার অথবা অন্য কোনো মেলার আয়োজন।

সামার আসার সাথে সাথে অতিথি পাখির মতো দেশ থেকে অতিথি শিল্পীরা আসতে থাকেন। তবে এবারের শিল্পীদের মিছিল বেশ দীর্ঘই মনে হচ্ছে। আগে শিল্পী আনা এবং এইসব অনুষ্ঠান শো-টাইম মিউজিকের কর্ণধার আলমগীর খান আলম এককভাবেই করতেন। এবারেই দেখলাম উনার বাইরে একাধিক ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান শিল্পীদের আনার বা বিভিন্ন অনুষ্ঠান আয়োজনের ঘোষণা দিয়ে রেখেছেন।

১৪ জুন এক অনুষ্ঠানে থাকছেন ওমর সানি, মৌসুমী, খন্দকার ইসমাইল, তানভীর তারেক, রিজিয়া পারভীন, টনি ডায়েস, প্রিয়া ডায়েস, তারিন প্রমুখ।

১৬ জুন অপর এক অনুষ্ঠানে থাকছেন বেবী নাজনীন, সামিনা চৌধুরী এবং রিজিয়া পারভীন।

ব্যান্ড দল মাইলসের ৪০ বছর পূর্তি ট্যুর আছে আমেরিকার বিভিন্ন স্থানে। এর মধ্যে নিউ ইয়র্কে শো রাখা হয়েছে ২৮ জুন।

১৩ জুলাই সিনে অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে ছবি দেওয়া হয়েছে শাকিব খান, ডিপজল, দেবাশীষ বিশ্বাস, নিরবসহ অসংখ্য তারকাদের ছবি। ১৭ বছর ধরে শো-টাইম মিউজিকের ঢালিউড অ্যাওয়ার্ড চলে আসছে। এবার চালু হচ্ছে সিনে অ্যাওয়ার্ড! কীভাবে, কেন বা কিসের ভিত্তিতে এই পুরস্কার তার কোনো কারণ বা নির্বাচনের ধরন আগে শোনা না গেলেও শিল্পীদের তালিকা রয়েছে বিশাল। যদিও ভিসা এবং অন্যান্য বিষয়ের উপর পরবর্তীতে এদের অনেককেই নাও দেখা যেতে পারে!

ব্যান্ড তারকা জেমস এবং মিলার আমেরিকা ট্যুর থাকলেও তাদের শোর তারিখ এখনো জানা যায়নি।

এছাড়া প্রথমবারের মতো আসছে ন্যান্সি। সাথে প্রতিক হাসান এবং আরো অনেক শিল্পী। শিল্পীরা এসে বিভিন্ন মেলা এবং পিকনিকের অনুষ্ঠানে গান করেন। প্রতিটি পিকনিকের সাথে গান যেন আরাধ্য হয়ে গেছে!

হয়তো আরো নতুন আয়োজন বা তারকাদের আগমন ঘটবে। সব মিলিয়ে এবারের সামার বাংলাদেশি তারকায় মুখরিত থাকবে নিউ ইয়র্কের বাঙালি পাড়া।

আজকের পত্রিকা/জেবি