জাতীয় দলে খেলছেন ২০১৭ সালের অক্টোবর থেকে। টেস্ট ক্রিকেটে নিজেকে সেভাবে মেলে ধরতে না পারলেও, ওয়ানডে ক্রিকেটে বেশ সফল পাকিস্তানের বাঁহাতি ওপেনার ইমাম উল হক। ছবি:সংগৃহীত

জাতীয় দলে খেলছেন ২০১৭ সালের অক্টোবর থেকে। টেস্ট ক্রিকেটে নিজেকে সেভাবে মেলে ধরতে না পারলেও, ওয়ানডে ক্রিকেটে বেশ সফল পাকিস্তানের বাঁহাতি ওপেনার ইমাম উল হক। এখনও পর্যন্ত ৩৬ ওয়ানডে খেলে রান করেছেন প্রায় ৫৫ গড়ে।

অথচ বছর দেড়েক আগে জাতীয় দলে ডাক পাওয়ার পর থেকেই একটি সাধারণ বাক্য শুনতে হয় তাকে। সেটি হলো, চাচা ইনজামাম উল হকের ক্ষমতার জোরেই জাতীয় দলে খেলতে পারছেন ইমাম। এ কথার পেছনে নিন্দুকদের যুক্তি একটাই- পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক ইনজামাম এখন জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক। আর নিজের এ ক্ষমতা কাজে লাগিয়ে স্বজনপ্রীতি দেখিয়েই ভাতিজা ইমামকে দলে নিয়েছেন ইনজামাম।

ইমাম বলেন, ‘এ বিষয়টা আপনারা, মিডিয়াতেই বেশি বলাবলি হয়। আমাদের সাধারণ জনগণ খুবই নিরীহ। তাদের যা বলা হয়, যা দেখানো হয় তাই বিশ্বাস করে। আমি আল্লাহ্‌কে বিশ্বাস করি। আমি খেলছি কারণ আল্লাহ্‌ ঠিক করে রেখেছেন আমি জাতীয় দলে খেলব। তবে এসব সমালোচনা আমাকে আরও শক্ত হতে সাহায্য করেছে। আমি এসবে ব্যথিত হলেও, ইতিবাচকভাবে নেয়ার চেষ্টা করি।’