আবুধাবিতে বাংলাদেশ দূতাবাসের হল রুমে প্রবাসীদের বিভিন্ন সমস্যা ও সমাধানের লক্ষ্যে আয়োজিত মতবিনিময় সভা। ছবি: সংগৃহীত

সংযুক্ত আরব আমিরাতে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকা বাংলাদেশের ভিসা ও ভিসা ট্রান্সফার উন্মুক্ত করার জোর চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ। তবে আমিরাতে অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশিরা স্থানীয় আইন কানুন মেনে চললে ভিসা সংক্রান্ত জটিলতা দ্রুত সমাধান হবে বলে মনে করেন তিনি।

সোমবার রাতে আবুধাবিতে বাংলাদেশ দূতাবাসের হল রুমে প্রবাসীদের বিভিন্ন সমস্যা ও সমাধানের লক্ষ্যে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। মান্যবর রাষ্ট্রদূত ডাক্তার মুহাম্মদ ইমরানের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে মুক্ত আলোচনায় অংশ প্রবাসীরা। খুবই মনোযোগ সহকারে প্রবাসীদের বিভিন্ন সমস্যার কথা শুনেন এবং যতটুকু সম্ভব উত্তর দিয়েছেন বা সমাধান করেছেন, বাকি সমস্যা নোট করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করার আশ্বাস দেন প্রতিমন্ত্রী।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, গভর্নমেন্ট সামিট যোগ দিতে এসে যেখানে, যেভাবে আমিরাতের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীদের সাথে দেখা হচ্ছে শুরুতেই ভিসা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে কথা বলার চেষ্টা করেছি। কেননা ১৭ ফেব্রুয়ারি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমিরাতে সফরে আসলে ভিসা সংক্রান্ত বিষয়ে যাতে একটা ফলপ্রসূ আলোচনার ব্যবস্থা করতে পারি। আমিরাতের বিভিন্ন প্রদেশ যেমন শারজাহ, আজমান, রাস আল খাইমা, ফুজাইরা ও উম্মুল কুয়ুন কনসুলেট অফিস চালুর দাবি, প্রবাসীরা অবসরে যাওয়ার পর পেনশন বা সরকারি সহযোগিতার প্রস্তাব, আমিরাতের মার্কেট এর সাথে তাল মিলিয়ে জনতা ব্যাংকে টাকার রেট নির্ধারণ, দুবাই বিমান বন্দরে বাংলাদেশ বিমানের বড় ফ্লাইট দেয়া, বিমানে বিনামূল্যে লাশ বহন ও দেশে বিমান বন্দরে প্রবাসী অযথা হয়রানি বন্ধের জোর দাবিসহ নানা বিষয়ে মন্ত্রীকে অবহিত করেন প্রবাসীরা। প্রবাসীদের এ সব দাবি বাস্তবতাকে সামনে রেখে সমাধানের আশ্বাস দেন মন্ত্রী। মিথ্যা প্রতিশ্রুতি বা আশ্বাস পরিহার করে সাদাকে সাদা, কালোকে কালো বলার সাহসিকতা দেখে প্রবাসীরা মন্ত্রীর ভূয়সী প্রশংসা করেছেন। প্রবাসীরা মনে করেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এবার দক্ষ এবং বাস্তববাদী একজনকে লোককে প্রবাসীদের অভিভাবক হিসাবে মন্ত্রী সভায় নিয়োগ দিয়েছেন। তার মাধ্যমে প্রবাসীরা তাদের অধিকার আদায়ের সহযোগিতা পাওয়ার আশা প্রকাশ করেন প্রবাসীরা।

মতবিনিময় সভায় বাংলাদেশ থেকে আগত বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা এবং প্রধানমন্ত্রীর সফর উপলক্ষে আগত প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। দুবাই কনসুলেট জেনারেল ইকবাল হোসেন খান, প্রফেসর হাবীবুল হক খন্দকার, কমিউনিটি নেতা ইফতেখার হোসাইন বাবুল সহ বাংলাদেশ প্রেসক্লাব ইউএই ও বিভিন্ন অংগ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এতে উপস্থিত ছিলেন . উল্লেখ্য জনতা ব্যাংকের ওয়েজার্নার বন্ডের বিপরীতে প্রবাসী ব্যবসায়ীদের লোন দেয়ার যে দাবি ছিল সরকার তা পূরণ করেছেন এবং এখন থেকে তা কার্যকর হবে বলে জানান প্রবাসী প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ।

আজকের পত্রিকা/জিয়াউল হক জুমন/ইউএই প্রতিনিধি