উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান বৃদ্ধার বাড়িতে।

‘আমার কি ভাতার কার্ড পাওয়ার বয়স ওইছেনা? মেম্বরের কাছে গেলে কয় সামনে আইলে দেমনে।’ এ কথা গুলো বলেন, ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলার গালাগাঁও ইউনিয়নের কালনীকান্দা (নদীরপাড়) গ্রামের মৃত মুজাফর উদ্দিনের স্ত্রী দরিদ্র জাহানারা বেগম (৬৯)।

জানা গেছে, ২০ বছর আগে জাহানারা বেগমের স্বামী মুজাফর উদ্দিন ১ সন্তান নূরুল আমিনকে রেখে মারা জান। একমাত্র সন্তান নূরুল আমিনকে নিয়ে বৃদ্ধা জাহানারা বেগম স্বামীর রেখা যাওয়া ৩ শতাংশ ভূমিতে বসবাস করেন। একমাত্র নূরুল আমিন বিয়ে করে স্ত্রী সহ ঢাকা কাজ করে।

বৃদ্ধামাকে সহযোগিতা করার সামার্থ নেই তার। নূরুল আমিনের তিন শিশু সন্তান বৃদ্ধ মা জাহানার কাছে রেখে যান।

দরিদ্র জাহানার বেগম জানান, আমরা গরিব মানুষ। ৩ টা নাতিন নিয়ে কষ্টে আছি। সন্তানের সামান্য রোজগারে কোন মত চলছে কোন মত সংসার। অসুস্থ হলেও অর্থাভাবে ওষুধ কেনা হয়না। তাই কষ্টে দিন পার করছি।

একটা বয়স্ক ভাতা কার্ডের জন্য মেম্বারের কাছে গেলে কয় সামনে কার্ড আইলে দেমনে। এই ভাবে দিনের পর দিন গেলেও জোটেনি ভাতার কার্ড।

গত শুক্রবার দরিদ্র বৃদ্ধা জাহানারা বেগমের বাড়িতে গেলে এ প্রতিনিধিকে প্রশ্ন করে বলেন, আমারকি ভাতার কার্ড পাওয়ার বয়স ওইছেনা।

-রফিক বিশ্বাস