রাজধানীর কারওয়ানবাজারে বিপিসির লিয়াজোঁ কার্যালয়ে সমঝোতা বৈঠক

বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন-বিপিসির সঙ্গে আলোচনায় কিছু দাবি পূরণের আশ্বাস পেয়ে ধর্মঘট ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিত করেছে পেট্রোল পাম্প ও ট্যাংক লরি মালিক-শ্রমিকরা।

সোমবার রাজধানীর কারওয়ানবাজারে বিপিসির লিয়াজোঁ কার্যালয়ে সমঝোতা বৈঠকের পর বাংলাদেশ জ্বালানি তেল পরিবেশক সমিতির সভাপতি সৈয়দ সাজ্জাদুল করিম এ কথা জানান।

রংপুর, রাজশাহী ও খুলনা বিভাগের ২৬ জেলায় প্রায় দেড় দিন জ্বালানি তেল বিক্রি বন্ধ থাকার পর এমন ঘোষণা এলো।

বৈঠক শেষে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে সাজ্জাদুল করিম বলেন, ‘উনারা আমাদের আশ্বাস দিয়েছেন। আমরা জনগণের ভোগান্তি চাই না। আগামী ১৫ ডিসেম্বর জ্বালানি প্রতিমন্ত্রীর আহ্বানে আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠকে আমাদের দাবিগুলো নিয়ে আলোচনা হবে বলে আমরা আশ্বস্ত হয়েছি। সে পর্যন্ত আমরা কর্মসূচি স্থগিত রাখছি।’

জ্বালানি তেল আমদানি ও সরবরাহকারী রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন-বিপিসির পরিচালক (বিপণন) সৈয়দ মেহদী হাসান বলেন, ‘খুবই ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে। উনাদের যেসব দাবি, তার মধ্যে বিপিসি সংশ্লিষ্ট বিষয় আছে দুই-তিনটি। বাকিগুলোর বিষয়ের অন্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা করতে হবে।’

তবে জ্বালানি তেল বিক্রিতে পাম্প মালিকদের কমপক্ষে সাড়ে ৭ শতাংশ কমিশন দেওয়ার যে দাবি ছিল, সে বিষয়ে ইতিবাচক আলোচনা হয়েছে জানিয়ে মেহদী হাসান বলেন, ‘মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে।’

প্রসঙ্গত, রাজশাহী, রংপুর ও খুলনা বিভাগের সব পেট্রোল পাম্পে রোববার (১ ডিসেম্বর) সকাল ৬টা থেকে ধর্মঘট শুরু করে ঐক্য পরিষদ।