আসাদুজ্জামান স্বপ্ন
সিনিয়র রিপোর্টার

অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান। ছবি : সংগ্রহীত

দক্ষিণ কলকাতার উত্তম মঞ্চে ‘দুই দেশ এক মঞ্চ’ শিরোনামে বাঙালির জীবনধারা ও দুই বাংলার কবিদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হলো কবিতা উৎসব।  অনুষ্ঠানে দেওয়া হয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামানকে জীবনকৃতি সম্মাননা। ২০০৭ সালে এই উৎসব শুরু করেছিলেন সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়।

উৎসবের মূল উদ্যোক্তা কবি ও লেখক বীথি চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘আমি মনে করি আমরা কৃতজ্ঞ যে তিনি (অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান) আমাদের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ গ্রহণ করেছেন। কারণ যে মানুষটা ভারতবর্ষে সর্বোচ্চ পুরস্কার পেয়েছেন এবং বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতির পদ ফিরিয়ে দিয়েছেন সেই মানুষকে সম্মান দিতে পেরে আমি অত্যন্ত গর্বিত।’

অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান বলেন, বাংলাদেশের কবিদের সঙ্গে পশ্চিমবাংলার পাঠক ও শ্রোতাদের যোগাযোগ করিয়ে দিতে অনবদ্য ভূমিকা নিয়েছেন বিথী চট্টোপাধ্যায়। এসব অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে পারস্পারিক সম্পর্কের ভিত্তিটা আরও শক্ত হয়। আমরা বাংলাদেশ যাত্রা শুরু করেছিলাম স্বাধীনতার মধ্য দিয়ে। অল্পদিনের মধ্য দিয়ে সেই পথ আবার হারিয়ে যাচ্ছিল। এখন চেষ্টা করা হচ্ছে আবার আগের জায়গায় ফিরিয়ে নিয়ে আসার। কিন্তু আমাদের সামনে জঙ্গিবাদের সমস্যা, মৌলবাদী সমস্যা, সাম্প্রদায়িকতার সমস্যা আছে। তবে রাষ্ট্রযন্ত্র কঠোর হস্তে জঙ্গিবাদ দমন করছেন।