আত্রাই নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন!

নওগাঁর মান্দায় নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে আত্রাই নদীতে বালু মহালের নামে রিভার বেড থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, বালুমহালের টেন্ডার বিজ্ঞপ্তির শর্তাবলী, জেলা প্রশাসকের চুক্তিনামা উপেক্ষা করে বালু মহালের নীতিব্যবস্থাপনা ২০১০/১১ এর সমস্ত শর্ত ভঙ্গ করে বালু উত্তোলন করে যাচ্ছেন একটি প্রভাবশালী মহল।

নদীতে দেশীয় ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলনের পরিবর্তে গভীর ডিপ-টিবওয়েলের ৬ সিলিন্ডার মেশিন বসিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করায় হুমকির মধ্যে পড়েছে নদী রক্ষা বাঁধ,আবাদি জমি, হাট-বাজার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ব্যাংক, ইউনিয়ন পরিষদসহ স্থানীয় বাধ সংশ্লিষ্ট বসতবাড়ী।ড্রেজার মেশিনের বিকট শব্দে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী।

প্রশাসনের নাকের ডগায় ৬টি ড্রেজার মেশিন বসিয়ে বালু উত্তোলন করা হলেও যেন দেখার কেউ নেই। সরেজমিন উপজেলার উপজেলার নুরুল্যাবাদ ইউপির জোতবাজার ত্রি-মোহনী এলকায় গিয়ে দেখা গেছে আত্রাই নদীর কোনো চর না থাকলেও ড্রেজার মেশিন বসিয়ে দেদারসে বালু উত্তোলন ও বিক্রয় করা হচ্ছে। খনন করে বালু উত্তোলনের বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও মান্দার আত্রাই নদীর উজান অংশের ইজারাদার মহাদেবপুরের শাকিলের লোকজন তা মানছেন না।

স্থানীয়দের অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, মান্দা উপজেলার প্রসাদপুর এবং নুরুল্যাবাদ ইউনিয়নের পাশ দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে আত্রাই নদী। উক্ত নদীর কিনারার রাস্তা (বাঁধ) দিয়ে হাজার হাজার লোকজন এবং যানবাহন চলাচল করে থাকে। এটি অত্র এলাকার একটি জনগুরুত্বপূর্ন রাস্তা। বর্তমানে উক্ত নদীর জোতবাজার পালপাড়াসহ ত্রি-মোহনী ঘাটের উত্তর পূর্ব পাশের এলাকায় নদীতে ৬ টি ড্রেজার মেশিন স্থাপন করে নদীর বাঁধের রাস্তার ধার ঘেঁষে অবৈধভাবে বালু এবং মাটি উত্তোলন করছে একটি প্রভাবশালী মহল।

এতে করে নদীর বাঁধের সরকারী রাস্তটি নদী গর্ভে বিলীনসহ ব্যাপক ক্ষতির শঙ্কা করছেন স্থানীয় এলাকাবাসী। যেকোনো সময় অত্র এলাকার নদীর বাঁধ এবং বাঁধের রাস্তাটি ভেঙ্গে নদী গর্ভে বিলিন হয়ে যেতে পারে বলে তাদের ধারনা।

বর্ষাকালে উক্ত রাস্তাটি ভেঙ্গে গেলে হাজার হাজার মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়বে। নদীর বাঁধ দিয়ে ত্রি-মোহনী হাফেজিয়া মাদ্রাসা, সরকারী প্রাঃ বিদ্যালয়, নুরুল্যাবাদ উচ্চ বিদ্যালয় ও জোতবাজার বালিকা বিদ্যালয় এবং জোতবাজার মহিলা কলেজের শিক্ষার্থীদের চলাচল করতে চরম ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ভূক্তভোগীরা। এমতাবস্থায় উক্ত ড্রেজারগুলো দিয়ে আত্রাই নদী থেকে অবৈধভাবে বালু তোলা বন্ধ করা একান্ত আবশ্যক বলে মনে করছেন সচেতন এলাকাবাসী।

বিষয়টি বিবেচনায় এনে অত্র এলাকায় বসবাসকারী জনসাধারণের জান মালের নিরাপত্তা নিশ্চিতসহ আবাদী জমির ফসল রক্ষা, শিক্ষার্থীদের যাতায়াত ব্যাবস্থা উন্নত করনে দ্রæত রাস্তাটি সংস্কারকরন এবং সরকারী রাস্তাটি রক্ষার্থে জোতবাজার ত্রি-মোহনী পারের ঘাট হতে প্রায় ১০ কিলোমিটার পর্যন্ত এলাকায় যেনো কোন প্রকার ড্রেজার মেশিন পরিচালিত না হয় সে দিকে লক্ষ রেখে দ্রæত প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহনের দাবী জানানো হয়েছে।

মাহবুবুজ্জামান সেতু/মান্দা