মিয়ানমারের সমুদ্রসীমায় আটক ১৭ বাংলাদেশি জেলেকে দূতাবাসের মাধ্যমে ফেরত দেয়া হয়েছে।

শুক্রবার রাতে দুই দেশের জলসীমার শূন্যরেখায় কোস্টগার্ডের তাজউদ্দিন জাহাজে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ তাদের ফেরত দেয়।

জেলেদের মধ্যে ১৩ জন ভোলার, দুইজন চট্টগ্রামের, একজন ঝালকাঠি এবং একজন মুন্সিগঞ্জের বাসিন্দা।

কোস্টগার্ড জানায়, মিয়ানমারের হাতে বাংলাদেশি জেলে আটকের খবর পেয়ে কোস্ট গার্ড সদস্যরা মিয়ানমার নৌবাহিনীর সঙ্গে যোগাযোগ করেন।

এ সময় মিয়ানমার নৌবাহিনী বাংলাদেশি জেলেদের ফেরত দিতে রাজি হয় এবং এ জন্য কোস্ট গার্ড সদস্যদের অপেক্ষা করতে অনুরোধ জানায়। জেলেদের ফেরত আনতে কোস্ট গার্ডের নৌযান ‘তাজুদ্দিন’ মিয়ানমার জলসীমার কাছে গতকাল দুপুর থেকে অপেক্ষা করে। রাতে জেলেদের হস্তান্তর করা হলে তাদের টেকনাফে নিয়ে আসা হয়।

চট্টগ্রামের মাসুদ ফিশারিজ শীর্ষক ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের মাছ ধরার একটি ইঞ্জিন নৌকা নিয়ে ১৭ জন জেলে গভীর সাগরে মাছ ধরতে গিয়েছিল। সেন্ট মার্টিনস দ্বীপসংলগ্ন গভীর সাগরে মাছ ধরার সময় হঠাত্ নৌকার ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়।

এ অবস্থায় ভাসতে ভাসতে নৌকাটি গত বৃহস্পতিবার রাতের কোনো এক সময় মিয়ানমার সীমান্তে ঢুকে পড়ে। পরে মিয়ানমার নৌবাহিনীর সদস্যরা অনুপ্রবেশের অভিযোগে ওই জেলেদের নৌকাসহ আটক করে।