ঐতিহ্যবাহী মাছের মেলায় মাছ। ছবি; ফাইল ছবি

মৌলভীবাজার জেলার সদর উপজেলার শেরপুরে ১৩ জানুয়ারী থেকে শুরু হচ্ছে দুই দিনব্যাপী ঐতিহ্যবাহী মাছের মেলা।
প্রতি বছরের ন্যায় এবারও পৌষ সংক্রান্তির দিন থেকে শুরু হচ্ছে মাছের মেলা যা এলাকার মানুষের কাছে একটি বড় উৎসবের মতো।

২শত বছরের ঐতিহ্যবাহী এই মাছের মেলাকে সিলেট বিভাগের সবচেয়ে বড় মেলা হিসাবে গন্য করা হয়। দীর্ঘদিন যাবৎ পৌষ সংক্রান্তির দিন মৌলভীবাজারের মনু ও কুশিয়ারা নদীর মিলনস্থল মনু মুখ নামক স্থানে মেলা বসতো। সামাজিক দ্বন্ধের জেরে বিগত কয়েক বছর ধরে জেলা প্রশাসনের নির্দেশে শেরপুরের কুশিয়ারা নদীর পাড়ে স্থানীয় মৎস্য ব্যবসায়ীরা আয়োজন করে আসছেন মাছের মেলা। মূলত এটি হিন্দু ধর্মালম্বীদের উৎসব হলেও এই এলাকার সকল ধর্মের মানুষের কাছে এটি একটি বহু আকাঙ্খিত উৎসব।

এদিকে মেলা উপলক্ষ্যে ছেলে বুড়ো সকলের মধ্যে সাজ সাজ রব পড়েছে। চলছে মেলার মাঠের প্রস্তুতি। মেলায় সিলেট অঞ্চলের বিভিন্ন হাওর ও বিলের বড় দেশি প্রজাতির শোল, গজার, বোয়াল, চিতল, বাঘা আইড়সহ অন্যান্য মাছ আনা হয়, যার এক একটির মুল্য লক্ষাধিক টাকা। দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে মানুষ এই মেলায় মাছ কিনতে আসেন। ইতিমধ্যে সরকারি দপ্তর থেকে মেলার দোকানের টোল নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে। মেলার নিয়ম রক্ষার জন্য পর্যাপ্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

মেলায় শতশত মাছের দোকান, খেলনা, কাঠের আসবাব, গৃহস্থালি পণ্যসহ প্রায় সহস্রাধিক দোকান ও লক্ষাধিক লোকের সমাগম ঘটবে দুইদিন ব্যাপী এই মাছের মেলায়। পূর্বে এই মেলাকে কেন্দ্র করে মাসব্যাপী যাত্রা গান, সার্কাস ও পুতুল নাচের নামে নগ্ন নাচ ও রমরমা জুয়ার আসর চলত, যা কয়েক বছর যাবৎ বন্ধ করে দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। : আজকের পত্রিকা/সাহাবুদ্দিন আহমেদ/১৯-০১-২০১৯