রবি'র লোগো। ছবি: সংগৃহীত

বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ দুই টেলিযোগাযোগ কোম্পানি আজিয়াটা গ্রুপ বারহাদ (আজিয়াটা) এবং টেলিনর গ্রুপ (টেলিনর) সোমবার (৬ মে) একটি যৌথ মালিকানাধীন কোম্পানি গঠনের মাধ্যমে তাদের ব্যবসায়িক কার্যক্রম একীভূত করার আলোচনা শুরুর আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছে।

তবে বাংলাদেশে রবি আজিয়াটা সম্ভাব্য এ একীভূত প্রক্রিয়ার অংশ নয় বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন অপারেটরটি।

আজিয়াটা-টেলিনরের সম্ভাব্য একীভূত প্রক্রিয়ার উদ্যোগের পর রবি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, মালয়েশিয়ায় অবস্থিত বিশ্বমানের দুটি টেলিযোগাযোগ গ্রুপের সম্ভাব্য এই একীভূত প্রক্রিয়া সফলভাবে সম্পন্ন হলে আজিয়াটা গ্রুপ বারহাদের অধীন রবি একটি আলাদা ও স্বতন্ত্র কোম্পানি হিসেবেই পরিচালিত হবে।এর অর্থ হলো এশিয়ার এ সম্ভাব্য বৃহৎ একীভূত বাংলাদেশের মোবাইল টেলিকম মার্কেটে কোনো সরাসরি প্রভাব ফেলবে না।যদিও এটা মনে রাখা প্রয়োজন যে, গ্রুপ পর্যায়ে সম্ভাব্য একীভূতের এই পুরো প্রক্রিয়াটিই এখনো আলোচনার পর্যায়ে রয়ে গেছে। এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দুই পক্ষের লিখিত চুক্তির ওপর নির্ভরশীল, বলা হয় রবির বিজ্ঞপ্তিতে।

এশিয়ার নয়টি দেশে আজিয়াটার ১২টির বেশি সাবসিডিয়ারি কোম্পানি বা ব্যবসা রয়েছে। সম্ভাব্য এই একীভূত প্রক্রিয়ার অনেক বিষয় এখনো চূড়ান্ত হওয়া বাকি এবং তা দুই পক্ষের একমত হওয়ার ওপর নির্ভরশীল।বিনিয়োগকারীদের কাছে পুরো প্রক্রিয়াটিতে স্বচ্ছতা বজায় রাখার স্বার্থেই আজিয়াটা স্বেচ্ছায় সম্ভাব্য একীভূত বিষয়ক আলোচনার বিভিন্ন তথ্য প্রকাশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

মালয়েশিয়ার আজিয়াটা গ্রুপ বারহাদ, ভারতের ভারতী এয়ারটেল এবং জাপানের এনটিটি ডোকোমোর একটি যৌথ উদ্যোগ রবি আজিয়াটা লিমিটেড। এ কোম্পানিতে আজিয়াটার ৬৮.৭ শতাংশ, ভারতী এয়ারটেলের ২৫ শতাংশ এবং এনটিটি ডোকোমোর ৬ দশমিক ৩ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।

আজকের পত্রিকা/এমআরএস