বিশ্বকাপ ২০১৯ –এর স্পন্সরশিপ পেল উবার। ছবি: সংগৃহীত

বিশ্বের বৃহত্তম ব্যক্তিগত পরিবহন কোম্পানি উবার আজ আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯ -এর অফিসিয়াল স্পন্সর হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের সাথে গুরুত্বপূর্ণ অংশীদারিত্ব ঘোষণা করেছে।

এই অংশীদারিত্বের মাধ্যমে এই প্রথম কোনো পরিবহন ও খাদ্য সরবরাহকারী অ্যাপ, উবার, পুরুষদের আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপের স্পন্সর হয়েছে। পুরুষদের আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ বিশ্বের সবচেয়ে প্রতীক্ষিত ও উপভোগ্য ক্রীড়া আসরগুলোর মধ্যে একটি। ইংল্যান্ড ও ওয়েলস-এ অনুষ্ঠিতব্য ৩০ মে থেকে ১৪ জুলাই পর্যন্ত চলা এই ইভেন্টটির সরাসরি সম্প্রচার বিশ্বব্যাপী আনুমানিক ১.৫ বিলিয়ন দর্শক উপভোগ করবেন।

উবারের ক্যাম্পেইন ‘দিস ওয়ার্ল্ডকাপ, এভরি ফ্যান উইনস’ -এর প্রধান উদ্দেশ্য বিশ্বব্যাপী ক্রিকেটপ্রেমীদের নিয়ে একত্রিত হওয়ার একটি সংস্কৃতি তৈরি করা এবং এই উদযাপনের মূল আকর্ষণ হিসেবে এবারের আইসিসি বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো রিলিজ করা হয়েছে একটি থিম সং – ‘ওয়ে-ও, ওয়ে-ও’।

পাঁচটি অংশগ্রহণকারী দেশের প্রশংসিত শিল্পীরা একসাথে এই গানটি গেয়েছেন এবং গানটি ক্রিকেটপ্রেমীদের বিশ্বকাপ উদযাপন করতে নিজস্ব সুর দিবে। উবার তার শত শত ড্রাইভার ও কুরিয়ার পার্টনারের পাশাপাশি যাত্রী ও ভোজনরসিকদের সরাসরি বিশ্বকাপ উপভোগ করার সুযোগ করে দিবে এবং টুর্নামেন্টে একাত্মতার মনোভাব গড়ে তোলার জন্য কিছু কার্যক্রম পরিচালনা করবে।

উবারের চীফ ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস অফিসার ব্রুক্স এন্টউইস্টেল বলেন, ‘ক্রিকেটের মতো আন্তর্জাতিক খেলার প্রতি আমাদের প্রতিশ্রুতি আরও জোরালো করতে পেরে এবং এই খেলা যারা ভালবাসেন যেমন যাত্রী, খাদ্যরসিক, চালক এবং ডেলিভারি পার্টনারদের একে অপরের কাছাকাছি আনতে পেরে আমরা আমরা অত্যন্ত আনন্দিত। অংশগ্রহণকারী আটটি দেশে ক্রিকেট খেলা ভক্তদের প্যাশন যেখানে উবার ও উবার ইটস মানুষের দৈনন্দিন জীবনের এক অবিচ্ছেদ্য অংশ। আমরা বিশ্বাস করি, এই অংশীদারিত্বের মাধ্যমে আমরা যখন ভক্তদের যাতায়াত ও খাদ্যের প্রয়োজনীয়তা মেটাতে সহায়তা করবো তখন তাদের ক্রিকেটের প্রতি এই প্যাশন আরও জোরালো হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘এই প্রথমবারের মতো ভক্তদের কেন্দ্র করে আইসিসি বিশ্বকাপের একটি অ্যান্থেম তৈরি করতে পেরে আমরা অত্যন্ত উৎসাহী। আমরা আত্মবিশ্বাসী যে এই অ্যান্থেমটি সারা বিশ্ব জুড়ে লক্ষ লক্ষ ক্রিকেট প্রেমীদের সাথে সংযোগ স্থাপন করবে।’

মানু সহেনি, ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের সিইও, অংশীদারিত্বের ব্যাপারে বলেন, ‘আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯ -এ উবারের সাথে আমাদের অংশীদারিত্ব চলমান রাখতে পেরে আমরা আনন্দিত। তারা ক্রিকেটের ব্যাপারে যে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ তা গত মহিলা টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপে পরিষ্কারভাবে প্রমাণিত হয়েছে। এসময় তারা #রোডসিমেড প্রচারাভিযানে খেলোয়াড়দের পিছনের অনেক বিস্ময়কর গল্প তুলে ধরেছিলেন। এবারের গ্রীষ্মের বিশ্বকাপ নিয়েও উবার একই রকমের মনোমুগ্ধকর পরিকল্পনা করেছে এবং আমাদের আশানুসারে এটি ক্রিকেটের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় উদযাপন হতে যাচ্ছে।’

ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর এবং বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অলরাউন্ডার, সাকিব আল হাসান বলেন, ‘লক্ষ লক্ষ আবেগপ্রবণ বাংলাদেশী ক্রিকেটপ্রেমীদের উত্তেজনা আমিও উচ্ছ্বসিত এবং তাদের আশ্বস্ত করতে চাই যে এটি তাদের জন্য সর্বকালের অন্যতম একটি স্মরণীয় ক্রিকেট বিশ্বকাপ হতে যাচ্ছে। ক্রিকেটপ্রেমীদের উদযাপনের কেন্দ্রস্থলে রাখার উদ্যোগের জন্য আমি উবারকে সাধুবাদ জানাই এবং আশাবাদী যে ওয়ে-ও, ওয়ে-ও ক্রিকেটপ্রেমীদের একত্রিত করবে এবং খেলার জন্য তাদের ভালবাসাকে আরও গভীর করে তুলবে।’

বিশ্বব্যাপী নারী ক্ষমতায়নের যে উদ্যোগ তাদের ছিল তার সাথে সঙ্গতি রেখে, গত বছর উবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের নারী টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপে সমর্থন দিয়েছিলো। অংশীদারিত্বের অংশ হিসেবে, খেলাধুলায় নারীদের অংশগ্রহণকে উৎসাহ দেবার জন্য এবং টি-টুয়েন্টি চ্যাম্পিয়নশিপে সমর্থন আদায়ের জন্য উবার খেলাধুলা সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন ক্ষেত্রের ব্যক্তিদের নিয়ে #জার্সিনোজনোজেন্ডার নামে প্রচারাভিযান চালিয়েছিল।

আজকের পত্রিকা/এমআরএস