ইংলিশ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক অ্যান্ড্রু স্ট্রাউস ‘নাইট’ উপাধি পেয়েছেন। ডিউক অব ক্যামব্রিজ প্রিন্স উইলিয়ামস গত মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) তাঁকে এই উপাধিতে ভূষিত করেন। স্ট্রাউসের সঙ্গে ওই দেশের আরেক সাবেক অধিনায়ক জিওএফ বয়কটও ‘নাইট’ উপাধি পেয়েছেন।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’র প্রস্তাবে তাদেরকে বৃটেনের সম্মানজনক ‘নাইট’ উপাধিতে ভূষিত করে ব্রিটিশ রাজপরিবার। এর আগে ২০১৮ সালে ইংলিশ কিংবদন্তী ক্রিকেটার অ্যালিস্টার কুক, ২০০৭ সালে ইয়ান বোথাম এবং নিউজিল্যান্ডের হ্যাডলি নাইট উপাধিতে ভূষিত হয়েছেন।

২০০৪-২০১২ এই আট বছরের টেস্ট ক্যারিয়ারে স্ট্রাউস ইংল্যান্ডের হয়ে খেলেছেন ১০০টি টেস্ট। ৪০.৯১ গড়ে রান করেছেন ৭ হাজার ৩৭। সেই সঙ্গে ঝুলিতে পুরেছেন ২১টি সেঞ্চুরি এবং ২৭টি অর্ধশতক। তাঁর অধিনায়কত্বে দুইটি অ্যাশেজ জয়ের স্বাদ পায় ইংলিশরা।

৪২ বছর বয়সি এই ক্রিকেটার ইংল্যান্ডের জার্সি গায়ে খেলেছেন শতাধিক ওয়ানডেও। ১২৭ ওয়ানডে খেলে ৩৫.৬৩ গড়ে করেছেন ৪ হাজার ২০৫ রান। সর্বোচ্চ ১৫৮ রানের ইনিংসের সঙ্গে রয়েছে ৬টি শতক এবং ২৭টি অর্ধশতক। ইংল্যান্ডের হয়ে ৪টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচও খেলেছিলেন এই ক্রিকেটার। তবে খুব একটা আলো ছড়াতে পারেননি।

২০১২ সালে সকল প্রকার পেশাদার ক্রিকেট থেকে অবসর নেবার পর ২০১৫ সালের ভেতরেই ইংলিশ ক্রিকেটের সর্বাধিক ক্ষমতাধর ব্যক্তিত্বে পরিণত হয়ে গিয়েছিলেন স্ট্রাউস। ইংল্যান্ডের ক্রিকেট বোর্ডের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দায়িত্ব সামলানোর ভার পড়ে তাঁর ওপর। সেই সঙ্গে প্রথমবারের মতো দেশকে বিশ্বকাপের স্বাদ এনে দেবার পেছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন তিনি।