জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। ছবি : সংগৃহীত

অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বহুতল ভবন নির্মাণের প্রকল্প অনুমোদন করেনি জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। ২৭ ফেব্রুয়ারি বুধবার একনেক সভায় প্রকল্পটি বাতিলের আবেদন জানায় মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়। প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয় জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) ১৭ তম সভা।

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান জানান, মুক্তিযোদ্ধাদের আপত্তির কারণে প্রকল্পটি বাতিল করা হয়েছে। তবে অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বহুতল ভবনের পরিবর্তে আলাদা আলাদাভাবে বাড়ি তৈরি করে দেওয়া হবে।

২০১৮ সালের জানুয়ারিতে একনেক বৈঠকে ‘প্রতি জেলা-উপজেলায় অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বহুতল ভবন নির্মাণ’ প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়। প্রকল্প বাস্তবায়নে ব্যয় ধরা হয় ২ হাজার ২৭৩ কোটি টাকা। সরকারের নিজস্ব অর্থায়নে এ প্রকল্পের আওতায় সারাদেশে ৫৩২টি ভবনে মোট ৮ হাজার ফ্ল্যাট নির্মাণের কথা ছিল। পাঁচতলা ভবন হলেও সেগুলোতে লিফটের কোনও ব্যবস্থা রাখা হয়নি বলে জানা গেছে।

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক জানিয়েছেন, ‘নিজ বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র আসা নিয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের আপত্তি ছিল। এ ছাড়া, বহুতল ভবনে তারা উঠতেও চান না। বয়সের কারণে বহুতল ভবনে ওঠা-নামায় তাদের কষ্ট হবে বলেও তারা জানিয়েছিলেন। তাই প্রকল্পটি বাতিল করা হয়েছে।’

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী জানান, একতলার একটি বাড়ি নির্মাণে প্রাথমিক খরচ ধরা হয়েছে ২০ লাখ টাকা। সে হিসাবে ১৬ হাজার বাড়ি নির্মাণে খরচ হবে ৩ হাজার কোটি টাকার বেশি।

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী বলেন, ‘অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের বহুতল ভবন নির্মাণের পরিবর্তে ইন্ডিভিজুয়াল (আলাদা আলাদা) বাড়ি নির্মাণ করা হবে। এজন্য প্রাথমিকভাবে ১৬ হাজার মুক্তিযোদ্ধার তালিকা তৈরি করা হয়েছে। আগামী মার্চের শেষ নাগাদ এ প্রকল্প অনুমোদনের জন্য প্ল্যানিংয়ে পাঠানো হবে বলে আশা করছি। মুক্তিযোদ্ধাদের একতলা বাসস্থান বা ঘর করে দেওয়া হবে। তারা চাইলে ওই ঘর তাদের বসতভিটায় হবে। প্রয়োজনে খাসজমি বন্দোবস্ত দিয়েও করা হবে।’

আজকের পত্রিকা/আ.স্ব/