আবরার ফাহাদকে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যার সঙ্গে সম্পৃক্ততার অভিযোগে বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের আইনবিষয়ক উপসম্পাদক অমিত সাহাকে সংগঠন থেকে স্থায়ী বহিষ্কার করা হয়েছে।

১৪ অক্টোবর সোমবার ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের এক জরুরি সিদ্ধান্ত মোতাবেক ‍বুয়েটে সাম্প্রতিক অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কর্তৃক গঠিক দুই সদস্যের তদন্ত কমিটির অধিকতর তদন্ত সাপেক্ষে এই তথ্য উঠে এসেছে যে, আবরার হত্যাকাণ্ডের সময় অমিত সাহা ঘটনাস্থলে উপস্থিত না থাকলেও ফেসবুকে কথোপকথনের সময় উক্ত ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিল। তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অধিকতর তদন্তে প্রমাণিত হওয়ায় অমিত সাহাকে ছাত্রলীগ থেকে স্থায়ী বহিষ্কার করা হলো।’

৬ অক্টোবর বুয়েটের তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ১৭তম ব্যাচের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে হলে ডেকে নিয়ে কয়েক দফা পিটিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। এ ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের ১১ নেতাকর্মীকে সংগঠন থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়।

আবরার হত্যার ঘটনায় তার বাবা বরকত উল্লাহ বাদী ১৯ জনকে আসামি করে চকবাজার থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এরপরই মামলাটির তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয় গোয়েন্দা পুলিশকে (ডিবি)।

ইতোমধ্যে ১৯ জনকেই গ্রেফতার করা হয়েছে। যাদের মধ্যে ৪ জন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

আজকের পত্রিকা/কেএফ