অনশনরত শিক্ষার্থীরা।

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) উপাচার্য প্রফেসর ড. এস এম ইমামুল হকের পদত্যাগের দাবিতে ২৪ এপ্রিল বুধবার সকাল থেকে আমরণ অনশনে থাকাদের মধ্যে তিনজন শিক্ষক ও ৬ শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসক তানজিল হোসেন জানান, অসুস্থদের মধ্যে শিক্ষকদের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে এবং শিক্ষার্থীদের তার অধীনে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

২৫ এপ্রিল বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল প্রশাসনিক পদ (প্রক্টর, ডিন, প্রভোস্ট, বিভাগের চেয়ারম্যান) থেকে ৫৬ জন শিক্ষক পদত্যাগ করেছেন। পদত্যাগকারী শিক্ষক সমিতির সহ-সাধারণ সম্পাদক মুহাঃ ইলিয়াস মাহমুদ জানান, শিক্ষক সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠকে নেওয়া এ সিদ্ধান্তে উপচার্যের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে বিভিন্ন প্রশাসনিক দায়িত্বে থাকা প্রায় ৭০জন শিক্ষকের মধ্যে ৫২ জন পদত্যাগ করেছে।

বাকিদের মধ্যে অনেকেই পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন।

শিক্ষকরা বলেন, ‘শুরুতে ৮ দফা দাবিতে আন্দোলন করেছি। টানা ৭ দিন অবস্থান ধর্মঘট পালন করেছি। কিন্তু প্রশাসন আমাদের সঙ্গে কোনরকম যোগাযোগ করেনি। তাই এখন আমাদের একটাই দাবি, উপাচার্যের পদত্যাগ।’

এদিকে ২৪ এপ্রিল বুধবার থেকে প্রশাসনিক ভবনের নিচ তলায় অবস্থান নিয়ে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর এসএম ইমামুল হকের অপসারণ চেয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীর আমরণ অনশনরত শিক্ষার্থীরা বলেন, ‘আমাদের একটাই দাবি, উপাচার্যের পদত্যাগ। আমরণ অনশনে বসেছি, দরকার হলে না খেয়ে মারা যাবো। তবুও উপাচার্য পদত্যাগ না করা পর্যন্ত অনশন চালিয়ে যাবো।’

উল্লেখ্য, ২৬ মার্চ থেকে টানা উপাচার্য বিরোধী আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে শিক্ষার্থীরা। এরপর আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করে শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা। আন্দোলনের ৩০তম দিনে আমরণ অনশন কর্মসূচীর ডাক দেয় আন্দোলনকারীরা।

আজকের পত্রিকা/এমএআরএস